পাহাড়ে অশান্তি অব্যাহত, লরিতে আগুন ধরানোর অভিযোগ আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে !

Aug 09, 2017 12:57 PM IST | Updated on: Aug 09, 2017 01:01 PM IST

#দার্জিলিং: পাহাড়ে অশান্তির কোনও বিরাম নেই ৷ ফের লরিতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার ঘটনা ঘটল ৷ কালিম্পঙের হনুমানঝোড়ায় ১০ নম্বর জাতীয় সড়কে লরি থামিয়ে তাতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় ৷ এই ঘটনায় পাহাড়ে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধেই অভিযোগের তির ৷

এদিকে সুকনায় পুলিশ-মোর্চা সংঘর্ষে গ্রেফতার হলেন মোর্চার সহ-সভাপতি বিশাল ছেত্রী ৷ ধৃতকে বুধবার শিলিগুড়ি আদালতে পেশ করা হয় ৷ মোর্চা নেতাকে নিজেদের হেফাজতে চেয়ে আবেদন জানিয়েছে পুলিশ ৷

পাহাড়ে অশান্তি অব্যাহত, লরিতে আগুন ধরানোর অভিযোগ আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে !

পাহাড়ে শান্তি ফেরাতে পাহাড়ের সব রাজনৈতিক দলকে ইতিমধ্যেই আলোচনার আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে বনধ প্রত্যাহার ও হিংসার পথ ছেড়েই আলোচনায় বসতে হবে। পাহাড়ের মানুষের স্বার্থেই এই প্রস্তাব বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রীর। এব্যাপারে সব দলের সমর্থন চাইলেও বামেদের অবস্থানে ক্ষোভ উগরে দেন মুখ্যমন্ত্রী। পাহাড় ইস্যুতে কৌশলে কংগ্রেসকে পাশে নিয়েই সিপিএমের কড়া সমালোচনা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

আগে প্রকাশ্য জনসভায় প্রস্তাব দিয়েছেন। এবার বিধানসভায় দাঁড়িয়ে মোর্চা-সহ সব দলকে আলোচনার বসার প্রস্তাব মুখ্যমন্ত্রীর। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বক্তব্য, পাহাড়ে ক্ষতির পরিমাণ প্রায় ৫৫০ কোটি টাকা। মানুষের দুর্দশার কথা ভেবেই আলোচনায় বসা উচিত। এব্যাপারে রাজ্যের অবস্থানও স্পষ্ট মুখ্যমন্ত্রীর বার্তায় ৷

গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনে আলোচনার দ্বারা এই সমস্যার সমাধান হতে পারে। আমি হিংসা পরিত্যাগ ও বনধ প্রত্যাহার করার শর্তে পাহাড়ের দলগুলির সঙ্গে আলোচনায় বসতে রাজি।

পাহাড়ের সমস্যা সমাধানে সবদলকে পাশে থাকার আবেদন করলেও বামেদের ভূমিকায় ক্ষোভ উগরে দেন মুখ্যমন্ত্রী। পাহাড় নিয়ে আলোচনা চলার সময়ই কৌশলে কংগ্রেসকে পাশে নিয়ে বামেদের ভূমিকায় সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘‘ পাহাড় ইস্যুতে উসকানি দিচ্ছে সিপিএম। ঘোলা জলে মাছ ধরছে। ওদের বলছি এটা করবেন না।'’

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES