শিশু পাচার কাণ্ডে দায় এড়াচ্ছেন ধৃত সরকারি আধিকারিক সাস্মিতা

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 07, 2017 06:24 PM IST
শিশু পাচার কাণ্ডে দায় এড়াচ্ছেন ধৃত সরকারি আধিকারিক সাস্মিতা
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 07, 2017 06:24 PM IST

#জলপাইগুড়ি: জলপাইগুড়ি শিশুপাচারকাণ্ডে দায় এড়ালেন ধৃত সাস্মিতা ঘোষ। উলটে প্রাক্তন জেলাশাসক পৃথা সরকারের ওপরেই দোষ চাপালেন বরখাস্ত হওয়া ডিসিপিও। এদিকে, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ক্রমশ চেপে বসছে আইনের ফাঁস। আজই সিআইডি-র কাছে গোপন জবানবন্দি দেন দার্জিলিং জেলা সিডব্লুসি-র দুই সদস্য। ধৃত সাস্মিতাকে সাত দিনের সিআইডি হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

শিশুপাচারচক্রের একের পর এক চাঁই জালে ধরা পড়তেই চাপ বাড়ছে সাস্মিতা ঘোষের ওপর। জলপাইগুড়ির বরখাস্ত হওয়া ওই ডিসিপিও-র বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ।

সাস্মিতার বিরুদ্ধে অভিযোগ

- চন্দনার হোম থেকে বিক্রি হওয়া ১৭ টি শিশুর নথিতে সই সাস্মিতার

- শিশু বিক্রি ও দত্তক নেওয়ার ক্ষেত্রে টাকা নেন তিনি

- স্বামী-স্ত্রী মিলে সরকারি ক্ষমতার অপব্যবহার করেন

এমনই সব চাঞ্চল্যকর অভিযোগ সামনে আসতেই নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা শুরু সাস্মিতার। যাবতীয় কর্মকাণ্ডের দায় তিনি চাপিয়েছেন জলপাইগুড়ির প্রাক্তন জেলাশাসক পৃথা সরকারের ওপরেই।

সাস্মিতা দায় এড়ানোর চেষ্টা করলেও, ক্রমশই চেপে বসছে আইনের ফাঁস। মঙ্গলবারই সিআইডি-র কাছে গোপন জবানবন্দি দেন প্রদীপ কর্মকার ও শেফালি গোস্বামী নামে দার্জিলিং জেলা সিডব্লুসি-র দুই সদস্য। জলপাইগুড়ির ঘটনায় টনক নড়েছে কেন্দ্রেরও। এদিনই, জলপাইগুড়ি যায় চাইল্ড রাইটসের দুই সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল। বিমলা শিশুগৃহ থেকে বেশকিছু নথি বাজেয়াপ্ত করে দলটি।

সোমবারই স্বাস্থ্য দফতরের অতিরিক্ত সচিবের পদ থেকে অপেক্ষাকৃত কম গুরুত্বপূর্ণ পদে সরিয়ে দেওয়া হয় পৃথা সরকারকে। হোমকাণ্ডে তাঁর নাম যুক্ত কিনা তা নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা। সাস্মিতার অভিযোগ সত্যি নাকি তদন্তকে ঘুরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা? খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

First published: 06:24:56 PM Mar 07, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर