পাহাড়ে মোর্চার জঙ্গিপনা, পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাথরের বৃষ্টি

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jun 13, 2017 08:09 PM IST
পাহাড়ে মোর্চার জঙ্গিপনা, পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাথরের বৃষ্টি
Photo : AFP
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Jun 13, 2017 08:09 PM IST

#দার্জিলিং: অনির্দিষ্টকালের পাহাড় বনধের প্রথম দিন তেমন সাড়া মেলেনি। তাই বেপরোয়া মোর্চা জঙ্গিপনা আরও বাড়াল দ্বিতীয় দিন। আঁচ করে আরও সতর্ক পুলিশ-প্রশাসন। সেনাকে সামনে রেখে চার স্তরে নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয় পাহাড়ে। চাপ বাড়াতে সিংমারিতে গুরুংয়ের গড় ঘিরে ফেলে পুলিশ।

সোমবার বনধ কার্যত ব্যর্থ। মঙ্গলবার তাই মরিয়া মোর্চার জঙ্গি পথ। মিছিলের সামনে মহিলা মোর্চা আর পিছনে যুব মোর্চার সদস্যরা। আস্তাবলের কাছে পৌঁছে তথ্য সম্প্রচার দফতরের অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেন তাঁরা।

এরপরই মিছিল জেলাশাসকের দফতরের দিকে এগোতে থাকে। হিলকার্ট রোডের কাছে মোর্চার মিছিল আটকান পুলিশ সুপার। সেখানেই রাস্তায় বসে পড়েন মহিলা মোর্চার সদস্যরা। এরপরই মিছিল ও আশপাশের বাড়ি থেকে পুলিশকে লক্ষ করে ইট-পাথর উড়ে আসতে থাকে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে লাঠি চালায় পুলিশ। ঘটনাস্থলে পৌঁছন জাভেদ শামিম ও সিদ্ধিনাথ গুপ্তা। ধরপাকড় শুরু করে পুলিশ।

আন্দোলন যে রাস্তা বদল করবে এটা যেন আগেভাগেই আঁচ করতে পেরেছিল পুলিশ-প্রশাসন। তাই মঙ্গলবার সকাল থেকেই দার্জিলিংয়ে পথে নেমে দফায় দফায় নজরদারি চালান পুলিশের শীর্ষ আধিকারিকরা। পাহাড়ের আইনশৃঙ্খলা সামলাতে সদ্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে তিন আইপিএস অফিসারকে। রাস্তায় নেমেছিলেন তাঁরাও।

মোর্চা সমর্থকরা সিংমারিতে দলের সদর দফতরে জড়ো হয়। চাপ বাড়াতে পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে গোটা এলাকা ঘিরে ফেলে পুলিশ। সঙ্গে সেনা, কেন্দ্রীয় বাহিনী, সিআরপিএফ, ইন্ডিয়ান রিজার্ভ ব্যাটেলিয়ান ও সিআইএস জওয়ানরা।

জঙ্গিপনা বাড়িয়ে উত্তেজনা ছড়ানোর চেষ্টা ছিল মোর্চার। কিন্তু নরমে-গরমে বারবার পরিস্থিতি সামলে বনধের দ্বিতীয় দিনও অ্যাডভান্টেজ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন।

First published: 07:58:26 PM Jun 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर