‘যা বলার সামনে এসে বল’, মুখ্যমন্ত্রীর চ্যালেঞ্জে কালো পতাকা দেখাতে এসে পালিয়ে বাঁচলেন বিক্ষোভকারীরা

Jun 05, 2017 05:23 PM IST | Updated on: Jun 06, 2017 04:21 PM IST

#দার্জিলিং: রাজ্যের স্কুলে বাংলা ভাষা আবশ্যিক করা নিয়ে ফের পাহাড়ে আন্দোলনের জিগির কোণঠাসা মোর্চার। মুখ্যমন্ত্রীর পাহাড় সফরের বিরোধিতায় সরাসরি সংঘাতের পথে বিমল গুরুংরা। সোমবার মুখ্যমন্ত্রীর সফরের আগেই মিরিকে বিক্ষোভ চলে।

এদিন মিরিক ঢোকার আগে মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের গাড়ির সামনে এসে কালো পতাকা দেখিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে একদল যুবক ৷ গাড়ি থামিয়ে নেমে আসেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ যুবকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, ‘যা বলার সামনে এসে বল ৷’ তারপরই পালিয়ে যান যুবকরা ৷

‘যা বলার সামনে এসে বল’, মুখ্যমন্ত্রীর চ্যালেঞ্জে কালো পতাকা দেখাতে এসে পালিয়ে বাঁচলেন বিক্ষোভকারীরা

ইতিমধ্যেই পাহাড়ে ব্ল্যাক আউটের ডাকও দেওয়া হয়েছে। আরও একধাপ এগিয়ে পাহাড়ে বনধ ডাকার হুমকিও দিয়েছে মোর্চা।

উল্টোদিকে, অস্তিত্বের সংকটে পড়ে ফের আন্দোলনের ডাক কোণঠাসা গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার। পুরসভা জয়ের পর মুখ্যমন্ত্রীর প্রথম মিরিক সফরের আগেই ফের আন্দোলনের অস্ত্রে শান দিল তারা।

কেন এই আন্দোলন? মুখ্যমন্ত্রী দশম শ্রেণি পর্যন্ত বাংলা ভাষা আবশ্যিক করার নির্দেশ দিতেই ফের জাতিসত্ত্বার ধুয়ো তুলেছেন বিমল গুরুং। ভরা মরসুমে পাহাড়ে বনধ ডাকার হুমকিও দিয়েছেন মোর্চাপ্রধান। বিরোধী হলেও মোর্চার পাশেই দাঁড়িয়েছে হরকা বাহাদুরের জন আন্দোলন পার্টি।

তৃণমূল কংগ্রেসের পালটা দাবি, দিশাহারা হয়েই ভরা মরসুমে এমন আন্দোলনের ডাক দিয়েছে মোর্চা। পাহাড়ে পৃথক রাজ্যের দাবিতে দীর্ঘ বিক্ষোভ-আন্দোলন হলেও সাফল্য পায়নি মোর্চা। তাই প্যাঁচে পড়ে এখন নতুন জিগির খাড়া করতে হচ্ছে বিমল গুরুংদের। এমনটাই দাবি বিরোধীদের। রাজনৈতিক মহলের মত, ভাষা নিয়ে আন্দোলনের মোড়কে আসলে ঘুরিয়ে পৃথক রাজ্যের দাবিই জোরালো করছে মোর্চা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES