নেওড়াভ্যালির জঙ্গলে বাঘ খুঁজে 'হিরো' অনমোল

Jan 21, 2017 07:54 PM IST | Updated on: Jan 21, 2017 07:54 PM IST

#জলপাইগুড়ি:  জঙ্গলের গভীরে সিসিটিভি বসিয়েও যে কাজটি করতে পারেনি বন দফতর, স্মার্টফোনের ক্যামেরা দিয়ে সেই কাজটিই করে দেখিয়েছেন অনমোল ছেত্রী। উত্তরবঙ্গের নেওড়াভ্যালিতে বাঘের হদিশ দিয়ে এখন কার্যত হিরো পেশায় গাড়িচালক এই যুবক। ইতিমধ্যেই তাঁকে সংবর্ধনা দিয়েছে বন দফতর। অনমোলের ছবিকে হাতিয়ার করেই নেওড়াভ্যালি জাতীয় উদ্যানকে ব্যাঘ্রপ্রকল্প হিসেবে ঘোষণার দাবি তুলছেন বন দফতরের আধিকারিকরা।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে সাতটা। পেডং থেকে গাড়ি নিয়ে লাভার উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছিলেন অনমোল ছেত্রী। হঠাৎ তাঁর চোখ যায় পাহাড়ের কোলে একটি বড় পাথরের আড়ালে। গাড়ি থামিয়ে ভাল করে দেখতেই চক্ষু চড়কগাছ। পাথরের পিছনে এ যে ডোরা কাটা আস্ত একটা রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার! প্রায় চার দশক ধরে এই জাতীয় উদ্যানে যার থাকার কথা শুধু শুনে এসেছে বন দফতর, সেই বাঘকেই সাক্ষাৎ সামনে থেকে দেখেন অনমোল। শুধু দেখাই নয়, পকেট থেকে মোবাইল বের করে, বাঘের কয়েকটি ছবিও তুলে রাখেন তিনি। সেই ছবিগুলি তুলে দেন বন দফতরের হাতেও।

নেওড়াভ্যালির জঙ্গলে বাঘ খুঁজে 'হিরো' অনমোল

১৯৯৭ সালে নেওড়াভ্যালির জঙ্গলে রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের অস্তিত্ব মিলেছিল। পায়ের ছাপ, নখের আচড়, মল দেখে বাঘের অস্তিত্বের টের পায় বন দফতর। শুধু ওটুকুই। সরাসরি বাঘ দেখার সৌভাগ্য মেলেনি। সেই বাঘের ছবি তুলেই এখন কার্যত হিরো অনমোল ছেত্রী। শুক্রবার বন দফতরের তরফে তাঁকে সংবর্ধনাও দেওয়া হয়। তাঁর সঙ্গে কথা বলেন স্বয়ং বনমন্ত্রী  বিনয়কৃষ্ণ বর্মন।

বাঘের হদিশ পেয়ে উচ্ছ্বসিত বন দফতর। নেওড়াভ্যালির জঙ্গলে নতুন করে সিসিটিভি বসানো হচ্ছে। নেওড়াভ্যালি জাতীয় উদ্যানকে ব্যাঘ্রপ্রকল্প হিসেবে ঘোষণার দাবি তুলছেন বন দফতরের আধিকারিকরা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES