আন্দোলনের নামে মোর্চার তাণ্ডব, সন্ধেতেও অশান্ত পাহাড়

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 15, 2017 07:05 PM IST
আন্দোলনের নামে মোর্চার তাণ্ডব, সন্ধেতেও অশান্ত পাহাড়
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 15, 2017 07:05 PM IST

#দার্জিলিং: চেনা জঙ্গি পথে ফিরছে পাহাড়ের আন্দোলন। তিনদিন জল মাপার পর আজ থেকে পাহাড়ে শুরু হল সর্বাত্মক বনধ। গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আরও মরিয়া মোর্চা। চোরাগোপ্তা আক্রমণ । পুলিশকে উস্কে ক্ষয়-ক্ষতি হলে তা দিয়ে আরও জোরদার আন্দোলন। অন্যদিকে কেন্দ্রের হস্তক্ষেপ চেয়ে দিল্লি দরবার। পাহাড়ে ক্রমেই বাড়ছে স্নায়ুর লড়াই।

স্কুলে বাংলা পড়ানোর সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পাহাড়ে অনির্দিষ্টকালের জন্য বনধ ৷ দলের বিক্ষোভ যে আরও হিংসাত্মক হতে চলেছে তার ইঙ্গিত মিলেছিল বুধবারই ৷ মিটিং করে বিমল গুরুং জানিয়ে দিয়েছিলেন, ‘আন্দোলনের তীব্রতা আরও বাড়বে ৷’ বক্তব্য অনুযায়ী পরিকল্পনামাফিক এগোনোর চেষ্টা। পুলিশ, প্রশাসনের চাপে তিনদিন কিছুটা ব্যাকফুটে ছিল মোর্চা। চতুর্থ দিনে একেবারে স্বমেজাজে।

আন্দোলনের নামে মোর্চার তাণ্ডব। সন্ধেতেও শে৷ কার্শিয়াঙের পাগলাঝোরায় সরকারি বাসে আগুন। মোর্চা সমর্থকদের বিরুদ্ধে আগুন লাগানোর অভিযোগ।

সকাল থেকেই শুরু হয় সেই চেনা খেলা। পাতলেবাসে বিমল ডেরায় যৌথ বাহিনীর অভিযান শেষে ফেরার পথে পুলিশকে লক্ষ করে ইট, পাথর ছোঁড়া। পেডং ফাঁড়িতে আগুন। কালিম্পংয়ে হিলটপ সরকারি গেস্ট হাউজে আগুন ধরানোর চেষ্টা। পাগলাঝোরায় সরকারি বাসে আগুন।

চোরাগোপ্তা এই হামলা আসলে রাজ্যের উপর চাপ বাড়ানোর চেষ্টা। পুলিশ কোনও ভুল করলেই যা আন্দোলনকে আরো তীব্র করবে।

একই সঙ্গে রাজ্যের সঙ্গে লড়াইয়ে সম্মানজনক সমাধান খুঁজতে মোর্চা নেতারা পৌঁছে যান দিল্লি। কিন্তু নিশ্চিত করে কোনও ত্রিপাক্ষিক বৈঠক ঠিক হয়নি। বরং পরিস্থিতি মোকাবিলায় কড়া রাজ্য। মোর্চার কৌশল বুঝে সাবধানী পুলিশও।

First published: 07:05:24 PM Jun 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर