কাঁচড়াপাড়ার কাঁচরা বনাম নাকতলার বাচ্চা, রাজ্য-রাজনীতিতে মুকুল-পার্থ দ্বৈরথ

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Oct 11, 2017 07:11 PM IST
কাঁচড়াপাড়ার কাঁচরা বনাম নাকতলার বাচ্চা, রাজ্য-রাজনীতিতে মুকুল-পার্থ দ্বৈরথ
Partha Chatterjee And Mukul Roy
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Oct 11, 2017 07:11 PM IST

#কলকাতা: রাজ্য-রাজনীতিতে এবার নতুন কোন্দল ৷ আর এই কোন্দলের দুই প্রধান চরিত্র মুকুল রায় ও পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ শুরুটা মুকুল রায়ের রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর পরই ৷ বুধবার দুপুর নাগাদ উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু-র হাতে ইস্তফা পত্র জমা দেওয়ার পরই, সাংবাদিক বৈঠকে একের পর তির ছুঁড়লেন মুকুল রায় ৷ কখনও তিরের বিপরীতে সোজাসুজি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আর কখনও নাম না করে কটাক্ষ করলেন দলের অন্যান্য মন্ত্রীকে ৷ অন্যদিকে সাংবাদিক বৈঠকে মুকুলের মন্তব্যেকে একেবারে চাঁছাছোলা ভাষায় আক্রমণ করলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ মুকুল রায়কে ‘কাঁচড়াপাড়ার কাঁচরা’ বলে ব্যঙ্গ করে বসলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ চুপ থাকলেন না মুকুল রায়ও, পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে ‘বাচ্চাছেলে’ সম্বোধন করলেন তিনি ৷ মুকুল-পার্থ-র নানা তীর্যক মন্তব্য নিয়েই বুধবার জমে উঠল রাজ্য-রাজনীতির মঞ্চ !

রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন এক সময় তৃণমূল কংগ্রেসের সৈনিক মুকুল রায়৷ ইস্তফার পরে সাংবাদিক বৈঠকে মুকুল রায় জানালেন,

‘পার্থ বাচ্চা ছেলে ৷ ওঁর প্রশ্নের জবাব দেওয়ার দরকার নেই ৷ একনায়কতন্ত্র দেশের রাজনীতির জন্য খারাপ ৷ কখনও তৃণমূল বিজেপি-র সঙ্গে, কখনও কংগ্রেসের সঙ্গে ৷ এখন তাঁরা মনে করছেন কংগ্রেস ছাড়া চলবে না ৷ বিজেপি সাম্প্রাদায়িক দল নয়৷’

সাংবাদিক বৈঠকে মুকুল আরও বলেন,

‘তৃণমূলের সব পদ ছাড়ছি ৷ অনেক যন্ত্রণার পর এই সিদ্ধান্ত ৷ বাধ্য হয়েই পদত্যাগ করলাম ৷ দলের জন্মলগ্ন থেকে ছিলাম ৷ ১৯৯৭ সালের ১৭ ডিসেম্বর রেজিস্ট্রেশন হয় ৷ নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন করেছিলাম ৷ ১৯৯৮ সালে বিজেপি-র সঙ্গে জোট হয় ৷ বিজেপি সাম্প্রদায়িক দল নয়, বলেছিল তৃণমূল ৷ পরে ইউপিএ-র সঙ্গে জোট হয়েছিল প্রথমে মমতার পাশে ছিলাম ৷ এখনই অন্য দলে যোগ দেওয়ার কথা ভাবিনি ৷ ক’দিন ছুটি কাটাব, তারপর পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেব ৷ সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে’

‘অনেক রাজনৈতিক নেতার সঙ্গেই কথা হচ্ছে ৷ তবে এখনই সিদ্ধান্ত নিইনি, কী করব ৷ চিটফাণ্ডের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট ৷ তদন্তকারী সংস্থা ডাকলে যাব ৷ ইতিমধ্যেই আমায় সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ৷ নারদ, সারদা নিয়ে মমতা জানতেন না কিছু৷’ ’

মুকুল রায়কেও একহাত নিতে ছাড়লেন না পার্থ ৷ সাংবাদিক বৈঠকে পার্থও মুকুলকে ‘কাঁচড়াপাড়ার কাঁচড়া’ বলে কটাক্ষ করে বসলেন ৷

সাংবাদিক বৈঠকে পার্থ বললেন,

‘কোথাও হালে পানি না পেয়েই বলছেন ছুটিতে যাব ৷ মিথ্যা বলে মমতাকে অপবাদ দিয়েছেন মুকুল ৷ এত বড় গদ্দারি আগেই কেউ করেনি ৷ ৬ মাস ধরে নাটক করেছেন কে চিনত মুকুল রায়কে? উনি যা বললেন অশ্বডিম্ব প্রসব ছাড়া কিছু নয়৷ দলের কেউ ওঁকে যোগাযোগ করতে নির্দেশ দেয়নি ৷ আরএসএস এর সঙ্গে ওঁকে যোগাযোগ৷ ২০০১-২০০৬ কংগ্রেসের সঙ্গে ছিল তৃণমূল ৷ ’

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কথায়,

‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই আমাদের রোল মডেল ৷ রোল মডেল করতে হলে একজনকে সামনে রাখতে হয় ৷ আমাদের নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ মুকুলের কথা আমাদের কাছে গুরুত্বহীন কাঁচরাপাড়ার কাঁচরা ছেলের কাছ থেকে দল বাঁচল৷ মুকুল বেরনোয় তৃণমূল বাঁচল ৷ উনি কাঁচরাপাড়ার কাঁচরাবাবু ৷ উনি দলে জমিদারি চালাতে চেয়েছিলেন ৷ আমাদের দলে কেউ চাকর নন, সবাই সহকর্মী ৷ সিবিআই ডাকতেই বিজেপি-র সঙ্গে যোগাযোগ৷ নিজে বাঁচতে গোপনে যোগাযোগ শুরু করেন মুকুল ৷ সিবিআই-এর কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন উনি ৷ ’

First published: 05:37:16 PM Oct 11, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर