এক বিজ্ঞাপনেই বিবাহবিচ্ছেদ! এবার সংবাদপত্রে ‘তালাক’

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Apr 06, 2017 03:11 PM IST
এক বিজ্ঞাপনেই বিবাহবিচ্ছেদ! এবার সংবাদপত্রে ‘তালাক’
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Apr 06, 2017 03:11 PM IST

#হায়দরাবাদ: টেক স্যাভি একবিংশ শতকে বদলে গিয়েছে যোগাযোগ ও কথা বলার মাধ্যম ৷ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাল মিলিয়ে আরও ‘অভিনব’ ও অমানবিক হয়েছে তিন তালাক পদ্ধতি ৷ পোস্টকার্ড, ফোন ও হোয়াটস অ্যাপের পর এবার সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে তালাক দেওয়ার ঘটনা সামনে এল ৷

সৌদি আরবের ব্যাঙ্কে কর্মরত এক প্রবাসী ভারতীয়ের বিরুদ্ধে সংবাদপত্রে ফলাও করে বিজ্ঞাপন দিয়ে তাঁর স্ত্রীকে তালাক দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ৷ স্বামীর বিরুদ্ধে হায়দরাবাদ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বছর ২৫-এর ওই তরুণী ৷

পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্ত মহম্মদ মুস্তাকউদ্দিনের সঙ্গে ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে বিয়ে হয় হায়দরাবাদ নিবাসী ওই তরুণীর ৷ বিয়ের পর স্বামীর সঙ্গে তরুণীও পাড়ি দেন সৌদি আরবে ৷ মাস কয়েক আগে দম্পত্তির পুত্রসন্তান জন্মের পর সদ্যজাত ছেলে সহ স্ত্রীকে হায়দরাবাদে পৌঁছে আরবে ফিরে যায় মুস্তাকউদ্দিন ৷ তারপর থেকে স্বামীর সঙ্গে বহুবার যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় তরুণী ৷

এরপরই গত ৪ মার্চ স্থানীয় উর্দু সংবাদপত্রে দেখেন, স্বামী বিজ্ঞাপন দিয়ে তাঁকে তালাক দিয়েছেন ৷ এরপরই মোগলপুরা পুলিশ স্টেশনে স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন ওই তরুণী ৷ পুলিশকে জানান, তাঁর স্বামী ২০ লক্ষ টাকা পণ চেয়ে চাপ দিচ্ছিলেন, সেই টাকা না দেওয়ায় সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে বিচ্ছেদ চেয়েছেন ৷

অ্যাসিস্টেন্ট কমিশনার এস গঙ্গাধর জানিয়েছেন, বিষয়টি তদন্ত করে দেখছে পুলিশ ৷ IPC৪৯৮ ধারায় কেস ফাইল করা হয়েছে ৷ এছাড়াও মহিলার স্বামী মহম্মদ মুস্তাকউদ্দিনের বিরুদ্ধে প্রতারণা ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগও আনা হয়েছে ৷ একই সঙ্গে শরিয়তি আইন অনুযায়ী এভাবে সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন দিয়ে তালাক দেওয়া যায় কিনা তাও দেখছে পুলিশ ৷

উল্লেখ্য, গত মাসে হায়দরাবাদ থেকে ৩৮ বছরের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ ৷ অভিযুক্তের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ করেছিলেন তাঁর স্ত্রী ৷ পরকীয়ায় হাতে নাতে ধরা পড়ার পর স্ত্রী প্রতিবাদ করায় বিয়ের মাত্র আট দিনের মাথায় পোস্টকার্ডে তালাক লিখে স্ত্রীকে ডির্ভোস দেন ওই ব্যক্তি ৷

First published: 03:11:07 PM Apr 06, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर