তারামায়ের আবির্ভাব তিথিতে মন্দিরে বিপুল ভিড় পুন্যার্থীদের

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Oct 04, 2017 08:25 PM IST
তারামায়ের আবির্ভাব তিথিতে মন্দিরে বিপুল ভিড় পুন্যার্থীদের
নিজস্ব চিত্র
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Oct 04, 2017 08:25 PM IST

#তারাপীঠ: তারামায়ের আবির্ভাব তিথিতে তারাপীঠে দিনভর শক্তির আরাধনা। সকাল থেকেই চলছে পুজো । সিদ্ধপীঠের হেঁশেলে তৈরি হচ্ছে হরেক ভোগ। বিশেষ পুজো দেখতে মন্দির চত্বরে ভিড় জমিয়েছেন পুন্যার্থীরা। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মন্দির চত্বরে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা করেছে প্রশাসনের।

কোজাগরী লক্ষী পুজোর আগে শুক্লা চতুর্দশী তিথিতেই আবির্ভূত হন মা তারা। সোমবার সিদ্ধপীঠ তারাপীঠে মাহাধুমধামে পালিত হচ্ছে মায়ের আবির্ভাব দিবস।

কথিত আছে পাল রাজাদের আমলে এই চতুর্দশী তিথিতে স্বপ্নাদেশ পান জয়দত্ত সদাগর। তারাপীঠ শ্মশানের শ্বেতশিমূলগাছের তলায় পঞ্চমুণ্ডির আসনের নিচে থেকে মা তারার শিলা মূর্তি উদ্ধার করে মন্দির প্রতিষ্ঠা করেন তিনি। সেই শুরু শক্তির আরাধনা। তখন থেকেই এই দিনটি মা তারার আবির্ভাব তিথি হিসাবে পালিত হয়ে আসছে।

ভোরে গঙ্গাজলে স্নান করিয়ে তারপর রাজবেশ। মঙ্গলারতি শেষে মাকে গর্ভগৃহ থেকে আনা হয় বিশ্রাম মন্দিরে। সিদ্ধপীঠে বছরভর উত্তরমুখে বসিয়ে মা তারার পুজো করা হয়। কিন্তু আবির্ভাব তিথির পুজো ব্যতিক্রমী। পশ্চিম দিকে মা তারার ছোটবোন মলুটির মা মৌলিক্ষা মন্দিরের দিকে মুখ করেই শুরু হয় পুজো। এদিন দুপুরে অন্নভোগ নয় চিঁড়ে, ফল দিয়ে ভোগ দেওয়া হয় মা তারাকে। পুজো উপলক্ষ্যে দিনভর উপবাসে থাকেন ভক্তরা। সন্ধ্যেয় মঙ্গলারতির পর খিচুরি ও পাঁচ রকম ভাজা দিয়ে ভোগ নিবেদন করা হয়। সেই প্রসাদ খেয়েই উপবাস ভাঙেন ভক্তরা। রাতে তারামাকে গর্ভগৃহে এনে স্নান করিয়ে আরতির পর বন্ধ হয় মন্দিরের দরজা।

First published: 08:25:33 PM Oct 04, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर