ভাঙড়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে ২ জনের মৃত্যু, আহত আরও এক

Jan 18, 2017 08:15 AM IST | Updated on: Jan 18, 2017 09:37 AM IST

#কলকাতা: অশান্ত ভাঙড়ে গুলিবিদ্ধ আরও এক বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হল ৷ এই নিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হল দুই ৷ গুলি-বোমার আঘাতেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ ৷ মৃতদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে ৷ আইজি দঃবঙ্গ অজয় রানাডে জানিয়েছেন, মৃত দুই বিক্ষোভকারী কলেজ ছাত্র ৷ নাম মফিজুল আলি খান (২৬), আলমগীর মোল্লা (২২) ৷

আহত আরও এক বিক্ষোভকারী আরজিকরে চিকিৎসাধীন ৷ তাঁর নাম আকবর আলি মোল্লা ৷ তাঁর ডান হাতে গুলি লেগেছিল ৷

ভাঙড়ে গুলিবিদ্ধ হয়ে ২ জনের মৃত্যু, আহত আরও এক

গ্রামবাসীরা পুলিশের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ আনলেও পুলিশের দাবি, বহিরাগতের গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে ওই দু’জনের ৷

বুধবার ভাঙড়কাণ্ডের প্রতিবাদে কলেজ স্কোয়ার থেকে দুপুর ২টোয় মিছিল করবে CPIML লিবারেশন ৷ পাশাপাশি APDR-সহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন মিছিল বের করবে ৷ মিছিলে হাজির থাকার কথা শহরের বিদ্বজ্জনেদেরও ৷

অশান্ত ভাঙড়ের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা, মানুষ না চাইলে, জোর করে জমি নেওয়া হবে না। প্রয়োজনে অন্য কোনও জায়গায় পাওয়ার গ্রিড গড়ে তোলা হবে। ভাঙড়ে কৃষিজমির চরিত্রের কোনও বদল হচ্ছে না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছে রাজ্য সরকার। একইসঙ্গে, পাওয়ার গ্রিড প্রকল্পের কাজ বন্ধের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে ৷

বদলাচ্ছে না জমির চরিত্র

- ভাঙড়ে জমির চরিত্র পরিবর্তন নয়

- কৃষিজমির চরিত্রও বদল করা হবে না

- একইসঙ্গে বন্ধ করা হল পাওয়ার গ্রিড প্রকল্পের কাজও

ভাঙড় এলাকার সাধারণ মানুষের দাবিকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে রাজ্য সরকার। সেই বার্তা পৌঁছে দিতেই সোমবার প্রকল্পের কাজ স্থগিত রাখার ঘোষণা করে রাজ্য। (মুখ্যমন্ত্রী ফোন করেন বিদ্যুৎমন্ত্রীকে। ভাঙড়ের পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে চলে দফায় দফায় বৈঠক।

প্রশাসনকে নির্দেশ

- ভাঙড়ের পরিস্থিতি যেন নিয়ন্ত্রণের বাইরে না যায়

- পুলিশকে সংযত থাকার নির্দেশও দেন মুখ্যমন্ত্রী

- মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবকে নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী

- পরিস্থিতির ওপর লাগাতার নজরদারির নির্দেশও দেওয়া হয়

- ঘটনা নিয়ে রিপোর্ট তলব করেছেন মুখ্যমন্ত্রী

- ইতিমধ্যেই প্রাথমিক রিপোর্ট মুখ্যমন্ত্রীর কাছে পৌঁছছে

- জেলাশাসকের কাছে রিপোর্ট তলব করেছেন মুখ্যসচিব

- রিপোর্ট চাওয়া হয়েছে বিদ্যুৎ সচিবের কাছেও

স্থানীয় বিধায়ক, মন্ত্রী রেজ্জাক মোল্লাকে এলাকায় যাওয়ার নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দলনেত্রীর নির্দেশে এলাকায় যান মুকুল রায়ও।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES