কৃষকদের প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের গুলি, নিহত ৩ কৃষক

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 06, 2017 07:47 PM IST
কৃষকদের প্রতিবাদ মিছিলে পুলিশের গুলি, নিহত ৩ কৃষক
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 06, 2017 07:47 PM IST

#ভোপাল: হিংসাত্মক রূপ নিল মধ্যপ্রদেশে কৃষকদের প্রতিবাদ মিছিল ৷ ফসলের ন্যায্যমূল্য, ঋণমকুবের দাবিতে আন্দোলনে নেমে গুলি খেলেন কৃষকরা। মধ্যপ্রদেশের মন্দসৌরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালায় পুলিশ ৷ গুলিতে কমপক্ষে তিন কৃষকের মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গিয়েছে ৷ আহত আরও চার জন ৷ পাল্টা পুলিশ চৌকিতে আগুন লাগিয়ে দেন বিক্ষুব্ধ কৃষকরা ৷ ঘটনার জেরে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে এলাকা। জারি করা হয় কারফিউ।

 খরার জেরে প্রবল আর্থিক ক্ষতির মুখে মধ্যপ্রদেশের কৃষকদের একটি বড় অংশ। মাথার ওপর রয়েছে দেনা। তার ওপর দাম নেই পেঁয়াজ-সহ একাধিক ফসলের। কৃষকদের আত্মহত্যার ঘটনাও ঘটছে। মধ্যপ্রদেশে বিগত কয়েকদিন ধরেই কর মকুব করার দাবি নিয়ে চলছিল চাষীদের আন্দোলন ৷ আন্দোলনের ষষ্ঠদিনে হিংসাত্মক রূপ নেয় চাষীদের প্রতিবাদ ৷ রাস্তায় ফসল ছড়িয়ে বিক্ষোভ দেখান কৃষকরা।

মঙ্গলবার পিপলিয়া জেলায় হাজারেরও বেশি চাষী রাস্তা আটকে বিক্ষোভ অবস্থানে সামিল হন ৷ সেসময়ই কিছু বিক্ষোভকারী রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে আগুন লাগানোর চেষ্টা করলে পরিস্থিতি গম্ভীর হয়ে ওঠে ৷ বিক্ষোভকারীদের আটকাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে বিরোধ বাধে চাষীদের ৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি চালায় পুলিশ ৷ তাতেই বিপত্তি ৷ গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয় তিন কৃষকের ৷ আহত আরও চার কৃষক ৷ আহতদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু, কয়েকজনকে আপ্রাণ চেষ্টা করেও বাঁচাতে পারেননি চিকিৎসকরা।

এই ঘটনায় উত্তেজিত কৃষকরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন ৷ পাল্টা পুলিশ চৌকিতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় ৷ ভাঙচুর চালানো হয় পুলিশের গাড়িতে ৷ চাষীদের উপর পুলিশি জুলুমের প্রতিবাদে বুধবার রাজ্য জুড়ে বনধ ডেকেছে রাষ্ট্রীয় কিষাণ মজুর সঙ্ঘ ৷

হিংসা যাতে আরও ছড়িয়ে পড়তে না পারে তার জন্য ইতিমধ্যে মন্দসৌরে, রতলাম ও উজ্জয়িনীতে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ৷ এমনকি বাল্ক মেসেজ পাঠানোর ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে ৷

গৃহমন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিং পুলিশের গুলিতেই কৃষকদের মৃত্যু হয়েছে বলে মেনে না নিলেও মৃতদের পরিবারের জন্য সরকারের তরফে পাঁচ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে ৷ অন্যদিকে পুরো ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন গৃহমন্ত্রী ৷ একই সঙ্গে তাঁর হুঁশিয়ারি আন্দোলনের নামে দুষ্কৃতিরা যে তান্ডব চালাচ্ছে তা কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না ৷

পুলিশ অবশ্য গুলি চালানোর অভিযোগ অবশ্য অস্বীকার করেছে সরকার। রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দাবি, পুলিশ নয়, গুলি চালিয়েছে সিআরপিএফ। পুলিশের দাবি, বিক্ষোভকারীদের ভিড়ে মিশে ছিল দুষ্কৃতীরা। পুলিশের সেই দাবিতে সিলমোহর দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চহ্বাণও। হতাহতদের জন্য আর্থিক সাহায্যের ঘোষণাও করেন তিনি।

মন্দসৌরের পুলিশ কমিশনার ওপি ত্রিপাঠী জানান, আন্দোলনকারীরা প্রতিবাদের নামে রেল গেট ভেঙে দেয় ৷ পুলিশ চৌকিতে ঢুকে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা ৷ দলৌদা স্টেশনের রেলগেট ভেঙে ট্রেন ট্র্যাকের ক্ষতি করার চেষ্টাও করা হয় ৷ বাধ্য হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কাঁদানে গ্যাস ছোঁড়ে পুলিশ ৷ অবস্থানকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠি চার্জ করে পুলিশ ৷

ফসলের দাম, কর মকুব ও কৃষিঋণ সংক্রান্ত ২০ দফা দাবি নিয়ে ধর্মঘটে নেমেছেন মধ্যপ্রদেশের চাষীরা ৷ সেই আন্দোলন চলাকালীনই এমন পরিস্থিতি ৷

সোমবার মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান ঘোষণা করেন, চাষীদের উন্নতির জন্য সরকার সবসময় সচেষ্ট ৷ যারা আন্দোলনের নামে এরকম তাণ্ডব চালাচ্ছেন তারা কেউই কৃষক নন ৷ মধ্যপ্রদেশের মন্দসৌরে কৃষক মিছিলে ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের নির্দেশ দিলেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান ৷

First published: 04:48:09 PM Jun 06, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर