অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি সুদীপ !

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Jan 13, 2017 10:28 AM IST
অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি সুদীপ !
Photo : AFP
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Jan 13, 2017 10:28 AM IST

#ভুবনেশ্বর: বৃহস্পতিবারই সিবিআই হেফাজতের মেয়াদ শেষ হয়ে ১৪ দিনের জেল হেফাজত হয়েছে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ৷প্রভাবশালী তত্ত্বেই আদালত জামিন দেয়নি তৃণমূল সাংসদকে ৷ এরপর গতকাল রাত থেকেই অসুস্থ বোধ করেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷তাঁকে ভর্তি করা হয়েছে ভুবনেশ্বরের ঝাড়পাড়া জেল হাসপাতালে ৷ বুকে ও পেটে ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সুদীপ ৷ ডাক্তাররা জানিয়েছেন তাঁর অবস্থা স্থিতিশীল ৷

এদিকে প্রভাবশালী তত্ত্বেই মদন মিত্রের মতোই সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কেও ঘায়েল করতে চাইছে সিবিআই ৷ সেই অস্ত্রেই বৃহস্পতিবার নাকচ হয়ে যায় তৃণমূল সাংসদের জামিনের আর্জি ৷সিবিআই-এর আইনজীবীদের দাবি, যেভাবে সুদীপবাবু গ্রেফতারের পর কলকাতার রাস্তায় তৃণমূলকর্মীদের বিক্ষোভ, কলকাতায় বিজেপি অফিসে ভাঙচুর থেকে শুরু করে ভুবনেশ্বের সিবিআই অফিসের সামনে বিক্ষোভ মিছিলের মতো সব কাণ্ডই ঘটেছে, তাতে সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে এখনই জামিন দেওয়া না হোক ৷ তবে প্রভাবশালী তথ্য দেখিয়ে সিবিআই তৃণমূল সাংসদকে আর নিজেদের হেফাজতে রাখার দাবি করেনি ৷

আদালতে সিবিআই আইনজীবী এদিন প্রশ্ন তোলেন, ‘‘সাধারণ মানুষের কোটি কোটি টাকা নয়ছয় ৷ সেই ব্যক্তির সংস্পর্শে থাকা সাংসদের কাজ নয় ৷ এটা সাংসদের ক্ষমতার অপব্যবহার ৷ তাঁর বিরুদ্ধে যথেষ্টই তথ্যপ্রমাণ রয়েছে ৷ তিনি রোজভ্যালির অনুষ্ঠানে ভাষণ দিচ্ছেন, সেই প্রমাণও রয়েছে ৷’ এই সব তথ্য আদালতের সামনে তুলে ধরে সুদীপের জামিনের তীব্র বিরোধিতা করে সিবিআই ৷ একইসঙ্গে গৌতম কুণ্ডুকে ফের জেরার আবেদন জানিয়েছে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ৷

আদালতে পেশের আগেই অবশ্য এদিন সংবাদমাধ্যমের সামনে সিবিআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি জানান, ‘‘আমাকে ফাঁসাচ্ছে সিবিআই, আমাকে ছাড়বে না ৷ নোট বাতিলের প্রতিবাদ করেছি, তাই আমি গ্রেফতার হয়েছি ৷ আমি বীরের মত এসেছি, বীরের মতই থাকব ৷’’ তৃণমূলের নেত্রীর নামে স্লোগান দিতে দিতে আদালতে প্রবেশ করেন সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তাপস পালের পর তাঁকেও ২৫ জানুয়ারি অবধি জেল হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে ভুবনেশ্বর আদালত ৷

First published: 10:24:30 AM Jan 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर