পরীক্ষার খাতায় প্রেমের গান থেকে গালাগালি!

Jan 28, 2017 01:11 PM IST | Updated on: Jan 28, 2017 06:17 PM IST

#কলকাতা: পরীক্ষার উত্তরপত্র দেখতে বসেছিলেন শিক্ষক ৷ খাতার পাতা উল্টোতেই চক্ষু চড়কগাছ ৷ পাতা জুড়ে পরীক্ষার প্রশ্নের উত্তরের বদলে লেখা প্রেমের কাব্য, অশ্লীল ইঙ্গিতে ভরা পংক্তি থেকে গালিগালাজ ৷ এমনই উত্তরপত্রের নমুনা দেখা গেল বালুরঘাট কলেজের আইন বিভাগে ৷

কোনও একটি খাতা নয় ৷ অধিকাংশ ছাত্রের উত্তরপত্রের সঙ্গে আইনের পড়াশোনার কোনও যোগাযোগই নেই ৷ গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরীক্ষা দিতে এসেছিলেন বালুরঘাট আইন কলেজের ছাত্ররা। দ্বিতীয় ও চতুর্থ সেমেস্টারের খাতায় ভবিষ্যৎ আইনজীবীদের এমন কীর্তিকে, বেয়াদপি বলেই মনে করছেন শিক্ষাবিদরা।

পরীক্ষার খাতায় প্রেমের গান থেকে গালাগালি!

চারমূর্তি ছবিতে টেনিদা ও প্যালার কথোপকথনে পরীক্ষার খাতায় ছবি আঁকার কথা শোনা গেছে। গৌড়বঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন পরীক্ষার উত্তরপত্র সেই ঘটনাই মনে করাল। আইন পরীক্ষার উত্তরপত্রে অবশ্য ছবি নয়, রয়েছে অন্য কিছু। খাতা জুড়ে শুধু গালিগালাজ, হিন্দি গান, প্রেম পত্র ৷ নমুনাগুলি অনেকটা এইরকম,

নমুনা ১- ‘কিতনে দিনো কে বাদ মিলে হো জানা বাতাও মুঝে সনম...ইতনি দিন তুম কাহা রহে, মেরি তো সুবহা অওর শাম তেরি ইন্তেজার মে কাটে...’

নমুনা ২- ভালবাসাবাসি আজ হবে পাশাপাশি। পুরনো অতীত ভুলে মনের দরজা খুলে ডেকে নেব তোমায়... আরও কাছাকাছি, ভালবাসাবাসি আজ হবে পাশাপাশি...

নমুনা ৩- স্যার, কিছু কথার মধ্যে ভুল হয়ে গেলে ছোট ভাই হিসেবে ক্ষমা করে দেবেন...না হলে.....

আইন পরীক্ষার উত্তর পত্রে হতবাক কর্তৃপক্ষও ৷ তারা জানিয়েছে, ‘কীর্তিমান’ পড়ুয়ারা বালুরঘাট আইন কলেজের ছাত্র ৷ এই ঘটনায় ক্ষুদ্ধ শিক্ষককেরা ছাত্রদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার আর্জি জানিয়েছেন ৷ ক্রুদ্ধ বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষও ৷ অভিযুক্ত ছাত্রদের চিহ্নিত করে শাস্তিস্বরূপ তাদের রেজিস্ট্রেশন বাতিল করার ইঙ্গিত বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের ৷

গৌরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন শিক্ষাবিদ পবিত্র সরকার ৷ তিনি বলেন, ‘পরীক্ষা ব্যবস্থাকে তুচ্ছ করে ফেলা হয়েছে ৷ পরীক্ষাকে গুরুত্বই দিচ্ছেন না পড়ুয়ারা ৷ শিক্ষাব্যবস্থায় গলদের জেরেই এই কাণ্ড ৷’

২৪ জানুয়ারি দ্বিতীয় ও চতুর্থ সেমেস্টারের রেজাল্ট আউট হয়েছে। দেখা গেছে, দ্বিতীয় সেমেস্টারে ১৮১ জনের মধ্যে ২৫ এবং চতুর্থ সেমেস্টারে ৭২ জনের মধ্যে মাত্র একজন পাশ করেছে। কীর্তিমান পড়ুয়াদের বেয়াদপির পর চার নম্বর করেও গ্রেস দিয়েও আর কাউকে পাশ করানো যায়নি। তবে ছাত্রদের একাংশের দাবি, নকল উত্তরপত্র প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES