৫০ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস

May 05, 2017 06:46 PM IST | Updated on: May 05, 2017 06:46 PM IST

#কলকাতা: তীব্র গতিতে ছুটে আসছে ঝড় ৷ এমনই পূর্বাভাস দিল আবহাওয়া দফতর ৷ তবে কলকাতায় নয়, ঝড়ের সম্ভাবনা রয়েছে মুর্শিদাবাদ, ঝাড়গ্রাম ও দুই মেদিনীপুরে ৷ একইসঙ্গে বর্জ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির পূর্বাভাসও দিয়েছে হাওয়া অফিস ৷

গত কয়েক দিনের শিলাবৃষ্টি ও ঝড়ে চাষের বিপুল ক্ষতি হয়েছে। কালবৈশাখীতে ক্ষতির মুখে আম ও ধান চাষ। সোমবারের ঝড়ে ফারাক্কা-সহ বিস্তীর্ণ এলাকায় আম ও লিচুর ক্ষতি হয়েছে। একই অবস্থা কাটোয়ারও। কাটোয়ার পাঁচটি ব্লকে প্রায় ৩২ হাজার হেক্টর জমির ধান নষ্ট হয়েছে।

৫০ থেকে ৬০ কিমি বেগে ঝড়ের পূর্বাভাস

লাগাতার কালবৈশাখী ঝড় এবং বৃষ্টির তাণ্ডবে ক্ষতিগ্রস্থ বর্ধমানের কৃষকরা। জলে ভাসছে বিঘার পর বিঘা ধানের জমি। বর্ধমান সদরের ১ ও ২ নম্বর ব্লক, রায়না, খণ্ডঘোষ, ভাতাড়, আউসগ্রাম, গলসী সহ কম বেশী সব ব্লকই ক্ষতিগ্রস্থ। কাটোয়াতেও ক্ষতির মুখে ধান চাষিরা।

কাটোয়ার ৫টি ব্লকে ৩২ হাজার হেক্টর জমিতে বোরো ধান চাষ হয়

তার মধ্যে ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ বোরো ধান নষ্ট হয়ে গেছে

মঙ্গলকোটের ৭৭০০ হেক্টর জমির ধান সম্পূর্ণ নষ্ট

কালবৈশাখী এবং বৃষ্টির জেরে জলমগ্ন চাষের জমি। ফলে মাঠে পড়ে পড়েই নষ্ট হচ্ছে পাকা ধান। লাভের আশা একপ্রকার ছেড়েই দিয়েছেন চাষিরা। যা অবস্থা তাতে উৎপাদনের খরচও উঠবে কি না তা নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। চাষিদের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

মুর্শিদাবাদেও কালবৈশাখী ঝড়ে আম, লিচু এবং ধানের ক্ষতি। বিশেষ করে ফরাক্কা ব্লকে অনেক লিচু গাছ ভেঙে পড়ায় চাষিদের মাথায় হাত। লালবাগ ও রঘুনাথগঞ্জ এলাকাতেও আম ও ধান চাষের ক্ষতি হয়েছে। সরকারের তরফে চাষিদের ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে।

একই ছবি পূর্ব মেদিনীপুরে। টানা বৃষ্টি এবং কালবৈশাখীর দাপটে ক্ষতিগ্রস্থ বিঘার পর বিঘার ধান চাষের জমি।

মালদহতেও ঝড়বৃষ্টিতে ক্ষতিগ্রস্থ আম এবং ভুট্টার চাষ। মালদহের কালিয়াচক, বৈষ্ণবনগর ও গোলাপগঞ্জের বিস্তীর্ণ এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ চাষের জমি। ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে এখন সরকারের দ্বারস্থ চাষিরা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES