‘আকাঙ্খাকে আমিই খুন করেছি’, আইনজীবীকে থামিয়ে দিয়ে স্বীকারোক্তি উদয়নের

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 15, 2017 05:34 PM IST
‘আকাঙ্খাকে আমিই খুন করেছি’, আইনজীবীকে থামিয়ে দিয়ে স্বীকারোক্তি উদয়নের
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Feb 15, 2017 05:34 PM IST

#বাঁকুড়া: ভরা এজলাসে বলিউডি নাটক ৷ খুনের অভিযুক্তকে আইনজীবীর বাঁচানোর শেষ প্রচেষ্টা ৷ কিন্তু সবই নিজে হাতে ভেস্তে দিলেন এ নাটকের মধ্যমণি ৷

‘আত্মঘাতী হয়েছিলেন আকাঙ্খা’, আইনজীবীর এহেন দাবিকে উড়িয়ে দিয়ে ভরা এজলাসে উদয়নের স্বীকারোক্তি,‘আমিই খুন করেছি আকাঙ্খাকে’ ৷

আটদিনের পুলিশ হেফাজত শেষে এদিন বাঁকুড়া জেলা আদালতে তোলা হয় আকাঙ্ক্ষা খুনে অভিযুক্ত উদয়নকে ৷ অভিযুক্তের আইনজীবী অরূপ বন্দ্যোপাধ্যায় তিন খুনে অভিযুক্তের স্বপক্ষে সওয়াল করে দাবি করেন, ‘খুন নয় আত্মঘাতী হয়েছেন আকাঙ্খা ৷’ আইনজীবীর কথা শেষ হতে না হতেই নাটকীয়ভাবে কথার মাঝপথেই তাঁকে থামিয়ে উদয়ন দাসের দৃঢ় স্বীকারোক্তি, ‘আত্মহত্যা নয়, আকাঙ্ক্ষাকে আমিই খুন করেছি ৷’

উদয়নের এমন বেপরোয়া মনোভাব মামলার প্রথম থেকেই ধরা পড়েছে ৷ পুলিশি জেরার মুখে সে নিজেই খুনের কথা স্বীকার করার সঙ্গে সঙ্গে কীভাবে খুন করেছে তাও বলে ৷ শুধু এই নয় ২০১১ সালে নিজের বাবা-মাকে খুন করে কোথায় পুঁতে রেখেছে তাও সে নিজেই দেখিয়ে দেয় ৷

এসবের পরও হার মানতে নারাজ উদয়নের আইনজীবী অরূপ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তাঁর দাবি, ‘পুলিশ হেফাজতে থাকাকালীন তাঁর উপর চাপ ৷ তার মানসিক অস্থিরতা তৈরি হয়েছে ৷ তার জেরেই এই মন্তব্য উদয়ন দাসের ৷ ওর মানসিক পরীক্ষা প্রয়োজন ৷’

আগের দিনের অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে এদিন আদালত চত্বর কার্যত মুড়ে ফেলা হয় কড়া নিরাপত্তা বলয়ে । আদালত চত্বরে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা বলয় তৈরি করা হয়েছে । আগের দিন উদয়নকে আদালতে তোলার সময় ব্যাপক বিক্ষোভ শুরু হয় । ভিড় সামাল দিতে হিমসিম খেতে হয় পুলিশকে । ভিড়ের মধ্য থেকে উদয়নের গাড়ি লক্ষ করে ইট পাটকেলও ছোঁড়া হয় । সেই ঘটনার পুনরাবৃত্তি যাতে না হয় তার জন্য আগে থেকেই সাবধানী ছিল পুলিশ।

আগামিকাল বাঁকুড়া তৃতীয় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গোপন জবানবন্দি দেবে উদয়ন ৷ কাল সকালে তৃতীয় জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে পেশ করা হবে উদয়নকে ৷ জবানবন্দি শেষে সিরিয়াল কিলার উদয়নকে ভোপাল পুলিশের ট্রানজিট রিমান্ডে নেওয়ার আবেদনে আবেদনে শুনানি হবে বাঁকুড়া CJM আদালতে ৷

First published: 05:34:25 PM Feb 15, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर