স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পে জনপ্রিয়তা কমায় কেন্দ্রকে দায়ী করল রাজ্য

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 27, 2017 07:59 PM IST
স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পে জনপ্রিয়তা কমায় কেন্দ্রকে দায়ী করল রাজ্য
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Mar 27, 2017 07:59 PM IST

#কলকাতা: স্বপ্ন দেখিয়েও ব্যর্থ রাজ্যের স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প ৷ ২০১৩ সালে রাজ্য সরকারের উদ্যোগে তৈরি হয় স্মল সেভিংস স্কিম। চিটফান্ড কেলেঙ্কারি নিয়ে রাজ্যের সাধারণ মানুষ সেসময় জেরবার। আস্থা ফেরাতে শ্যামল সেন কমিশনের সঙ্গে রাজ্য সরকার তৈরি করেছিল এই সঞ্চয় প্রকল্প। ঠিক হয় শ্যামল সেন কমিশন ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা ফেরাবে। আর সরকারি ক্ষুদ্র সঞ্চয়ে টাকা রেখে বেশি সুদ হারে সুদ পাবেন সাধারণ মানুষ। যদিও রাজ্যের ভাবনা মতো জনপ্রিয়তা পায়নি স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্প।

প্রকল্প চালু হওয়ার পর চার বছরে জমা পড়েছে মাত্র সাড়ে চার কোটি টাকা। স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পের ক্ষেত্রে যা অত্যন্ত কম বলেই মনে করছেন অর্থ দফতরের কর্তারা। এই স্কিম নিয়ে একটি রিপোর্ট তৈরি করে অর্থদফতর। দেখা যায়,

স্বল্প সঞ্চয় স্কিম,

-২০১৩-১৪ আর্থিক বছরে সঞ্চয় হয়েছে ২.৫ কোটি টাকা

-২০১৪-১৫ আর্থিক বছরে সঞ্চয় হয়েছে ৭২ লক্ষ টাকা

-২০১৫-১৬ আর্থিক বছরে সঞ্চয় হয়েছে ৪৯ লক্ষ টাকা

-২০১৬-১৭ আর্থিক বছরে সঞ্চয় হয়েছে ৯০ লক্ষ টাকা

কিন্তু কেন ধুঁকছে রাজ্য সরকারের সঞ্চয় প্রকল্প? কেন্দ্রের দিকেই আঙুল তুলছে রাজ্য। রাজ্য অর্থ দফতরের অভিযোগ,

-৪টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের মাধ্যমে স্কিমে পরিকল্পনা

-রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক এলাহাবাদ, এসবিআই, ইউবিআই, ইউকো

-কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের আওতায় এই ৪টি ব্যাঙ্ক

-অন্যান্য ব্যাঙ্কের থেকে বেশি সুদ দেওয়ার পরিকল্পনা

-৯ থেকে ৯.২৫ শতাংশ হারে সুদ ঘোষণা

-ইউবিআই ছাড়া কোনও ব্যাঙ্ক এগিয়ে আসেনি

- ডাকঘরগুলি এগিয়ে এলেও এজেন্টরা পক্ষপাতিত্ব করেছেন

- কেন্দ্রের সঞ্চয় প্রকল্পে গ্রাহকদের বিভিন্ন উপায়ে বোঝানো হয়ে থাকে

- রাজ্যের সঞ্চয় প্রকল্পে এজেন্টরা গ্রাহকদের বোঝাননি

স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পে জনপ্রিয়তা না পাওয়ার পিছনে নিজেদের খামতিও মানছে রাজ্য। রাজ্যের দাবি, চিটফান্ড কেলেঙ্কারির সময় সেভিংস স্কিম নিয়ে আতঙ্কে ছিলেন মানুষ। তাই সেভিংস স্কিমের সুবিধা বা ভালো দিকগুলো নিয়ে যতটা প্রচার চালানো উচিত ছিল তাতে খামতি থেকে গেছে বলে মানছে রাজ্য অর্থ দফতর।

First published: 07:59:38 PM Mar 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर