স্কুলে অবসরের বয়স এখনই ৬২ নয়, শীঘ্রই ৭২ হাজার নতুন স্কুল শিক্ষক নিয়োগ

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 12, 2017 04:20 PM IST
স্কুলে অবসরের বয়স এখনই ৬২ নয়, শীঘ্রই ৭২ হাজার নতুন স্কুল শিক্ষক নিয়োগ
File Photo
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 12, 2017 04:20 PM IST

#কলকাতা: একদিকে শিক্ষক পদপ্রার্থীদের জন্য সুখবর তো আরেক দিকে নিরাশ হলেন কর্মরত স্কুল শিক্ষকরা ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে অধ্যাপকদের অবসরের বয়স ৬০ থেকে ৬২ করার সিদ্ধান্ত নেয় উচ্চ শিক্ষা দফতর ৷ এই নতুন নিয়ম চলতি বছরের জানুয়ারি মাস থেকেই লাগু করা হয়েছে ৷ কিন্তু এই নিয়মের সুবিধা এখনই পাচ্ছেন না স্কুল শিক্ষকেরা ৷

স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, স্কুল শিক্ষকদের অবসরের বয়সসীমা এখনই বাড়ানো হচ্ছে না ৷ অর্থাৎ বর্তমান নিয়ম অনুসারে স্কুল শিক্ষকদের অবসরের বয়স ৬০ বছরই থাকছে ৷ অন্যদিকে, শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছে, স্কুলে স্কুলে শিক্ষক সঙ্কট মেটাতে অবিলম্বে ৭২ হাজার শিক্ষক নিয়োগ করবে স্কুল সার্ভিস কমিশন এবং প্রাথমিক শিক্ষা সংসদ ৷ তারপরেও প্রয়োজন পড়লে স্কুল শিক্ষকদের অবসরের বয়স বাড়ানোর বিষয়টি আলোচনা করে দেখা হতে পারে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ৷

শীঘ্রই রাজ্যে বিভিন্ন স্কুলে শূন্যপদে মোট ৭২ হাজার শিক্ষক নিয়োগের আশ্বাস দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শিক্ষামন্ত্রী ৷ কমিশন ও পর্ষদের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী রাজ্যে শিক্ষকদের জন্য মোট ৫৯,৪৬৮ শূন্যপদ রয়েছে ৷ তবে শিক্ষামন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী দু’জনেই আগে শূন্যপদ আরও বাড়ার ইঙ্গিত করেছিলেন ৷ পর্ষদ প্রাথমিকের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ দেওয়ার সময়ও প্রাথমিকে শূন্যপদ বেড়ে ৪১ হাজার ৫৫৯ থেকে বেড়ে হয় ৪২,৯৪৯টি ৷ উচ্চ প্রাথমিকে ১৬ হাজার ৫২৯টি শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি আগেই প্রকাশ করেছে স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিশ্রুতি মতো ২০১৫ শেষ হওয়ার আগেই গোটা রাজ্যের সব জেলাতেই প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণ প্রার্থীদের ইন্টারভিউ পর্ব সমাপ্ত ৷ এখন শুধু ফলপ্রকাশ ও নিয়োগপত্র হাতে পাওয়ার অপেক্ষা ৷ কিন্তু আইনি জটিলতায় বার বার বাধাপ্রাপ্ত শিক্ষক নিয়োগ ৷ আদালতে বিচারাধীন বিভিন্ন মামলার কারণে ঝুলে রয়েছে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া ৷ মামলা সম্পূর্ণ হলেই সম্পন্ন হবে শিক্ষক নিযুক্তিকরণ ৷

First published: 04:20:37 PM Jan 12, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर