৯৫-এ মৃণাল সেন, ছবির পর্দায় অন্যধারার গল্প !

May 14, 2017 02:03 PM IST | Updated on: May 14, 2017 02:03 PM IST

#কলকাতা: বাংলা ছবিতে তৈরি হয়েছিল তিনটে ঘরানা ৷ একটা সত্যজিৎ, আরেকটা ঋত্বিক ও তিন নম্বর মৃণাল সেন ৷ এই তিন পরিচালকের ছবি তৈরির ঘরানার মধ্যে তফাৎ অনেকটাই ৷ কেউ পর্দায় বাস্তবকে তুলে নিয়ে আসতেন, সাহিত্যের থেকে ধার করে, নন্দন ত্বত্তবের ওপর ভর করে ৷ যেখানে ছবি অনেকটাই ম্যাজিকাল ৷ কেউ আবার ছবির পর্দায় গল্পের মাধ্যমে অনবরত সমালোচনা করেই চলতেই সমাজের ৷ প্রথমটা যদি সত্যজিৎ রায় হন, তাহলে দ্বিতীয়টা অবশ্যই ঋত্বিক ঘটক ৷ তবে এই দুই পরিচালকের থেকে অনেকটা দূরে থেকেই সিনেমাকে অন্যভাবে দেখেছেন পরিচালক মৃণাল সেন ৷ কখনও কঠোর বাস্তব, তো কখনও মানুষের মনের থেকে স্বপ্ন ও দুঃস্বপ্নকে নিংড়ে নিয়ে এসে পর্দায় তৈরি করতেন এক অদ্ভুত ছবি ৷ আর তাই হয়তো, সত্যজিৎ রায়, ঋত্বিক ঘটকের পাশাপাশি সিনেমার পর্দার নিজের আলাদা ‘অটিয়োর’ তৈরি করেছিলেন মৃণাল সেন ৷

১৪ মে ৯৫তে পা দিলেন এই প্রবাদপ্রতিম পরিচালক ৷ মৃণাল সেন জন্মদিন সম্পর্কে তাঁর অটোবায়োগ্রাফিতে লিখেছিলেন, ‘I am one year younger than what I’ll be in next year’ ! ১৯২৩ সালে বাংলাদেশের ফরিদপুরে জন্ম হয় মৃণাল সেনের ৷ তবে পড়াশুনো, প্রথম চাকরি সবই কলকাতায় ৷ জীবিকা শুরু করেন মেডিক্যাল রিপ্রেজেনটিটিভ হিসেবেই ৷ তবে ছাত্র জীবন থেকেই কমিউনিজম, গণ্যনাট্যের সঙ্গে পরিচয় তাঁর ৷ মৃণাল সেন তাঁর আত্মজীবনী তে বার বারই বলেছেন, এই গণনাট্যই তাকে ছবি করতে বার বার অনুপ্রাণিত করেছে ৷ মৃণাল সেনের কথায়, গণনাট্যের জন্যই দেশের মাটিকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন ৷ গ্রাম-গঞ্জের ভিতরে ঢুকে আসল জীবনকে দেখেছেন ৷ দেখেছেন মানুষের লড়াইকে ৷ আর এই অভিজ্ঞতাই তাঁর ছবি তৈরির অন্যতম উপাদান ৷

৯৫-এ মৃণাল সেন, ছবির পর্দায় অন্যধারার গল্প !

১৯৫৫ সালে মৃণাল সেন তৈরি করেন প্রথম ছবি ‘রাতভোর’ ৷ মুখ থুবড়ে পড়ে এই ছবি ৷ ফিল্ম সমালোচকরাও খুব একটা ভালো চোখে দেখেননি এই ছবিকে৷ তবে এই অসফলতায় আটকে থাকেননি মৃণাল ৷ এরপরই তৈরি করেন ‘নীল আকাশের নিচে’ ৷ এই ছবি শুধু সাফল্য নয়, সত্যজিৎ ও ঋত্বিকের পাশাপাশি বাংলায় যে মৃণাল সেন আছেন তারও এক আভাস দিতে স্বচেষ্ট হয় ৷

এরপর একে একে ‘বাইশে শ্রাবণ’, ‘আকালের সন্ধানে’, ‘ভুবন সোম’, ‘একদিন প্রতিদিনি’, ‘খারিজ’, ‘ইন্টারভিউ’, ‘ক্যালকাটা ৭১’, ‘পদাতিক’ ৷ এতদিনে তিনি বাংলা সিনেমায় নতুন ধারা শুরু করে ফেলেছেন ৷ তৈরি করেছেন ‘মৃগয়া’, ‘মহাপৃথিবী’, ‘অন্তরীণ’ ৷ ২০০২ সালে মুক্তি পায় তাঁর তৈরি শেষ ছবি ‘আমার ভুবন’ !

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES