তৃণমূল কর্মীদের দিল্লিতে বেঁধে রাখার হুমকি দিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা

Jan 05, 2017 05:40 PM IST | Updated on: Jan 05, 2017 05:41 PM IST

#কলকাতা: সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গ্রেফতারির ঘটনায় ক্রমেই পারদ চড়ছে বিজেপি-তৃণমূলে। কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে রাজি নয়। কৈলাশ বিজয়বর্গীর পর এবার হুমকির সুর রাহুল সিনহার গলাতে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূলকে কারা রুখবে? দেখতে চান শাসকদলের নেতারাও।

তাপস পালের পর সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। পরপর দলীয় সাংসদ গ্রেফতারির প্রতিবাদে দেশজুড়ে বিক্ষোভ আরও জোরদার করছে তৃণমূল কংগ্রেস। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণেই সিবিআইকে কাজে লাগানো হচ্ছে। এই অভিযোগ তুলে বিজেপি-র বিরুদ্ধেই বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে তৃণমূল। মঙ্গলবার কলকাতায় বিজেপির রাজ্য দফতরে বিক্ষোভের পর, বুধবার প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে আটক হন তৃণমূল সাংসদরা। সেদিন বাধা পেলেও, এদিন নিরাপত্তা বেষ্টনী ভেঙে প্রধানমন্ত্রীর দফতরে ঢুকে পড়েন তাঁরা।

তৃণমূল কর্মীদের দিল্লিতে বেঁধে রাখার হুমকি দিলেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা

তৃণমূলের এই আক্রমণের মোকাবিলা করতে মাঠে নেমেছে বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপি বাধা দিলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেশের কোথাও যেতে পারবেন না বলে মঙ্গলবারই হুঁশিয়ারি দেন কৈলাশ বিজয়বর্গী। এবার দিল্লিতে তৃণমূল সাংসদদের বেঁধে রাখার হুঁশিয়ারি দিলেন রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, ‘ তৃণমূল কর্মীরা এত উত্তেজিত পশ্চিমবঙ্গে! আক্রান্ত হচ্ছেন বিজেপি নেতা-কর্মীরা ৷ এবার যদি তাদের কাউকে দিল্লিতে বেঁধে রাখা হয়, তার দায় কে নেবে ৷’ এখানেই শেষ নয়, রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে রাহুল সিনহার তোপ, সারদা রোজভ্যালি থেকে পয়সা নিয়েছে তৃণমূল ৷ তাদেরকেই ধরেছে সিবিআই ৷ তাই নিজেদের পিঠ বাঁচাতে নেমেছে তৃণমূল ৷ তাই PMO-য় এসব করছে তারা ৷ এসব করে কিছু লাভ হবে না ৷ তৃণমূল চুরি করেছে, চোর সাজা পাবেই ৷’

বিজেপি-কে কোনও অংশে জমি ছাড়তে নারাজ তৃণমূল কংগ্রেসও। শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের পাল্টা হুঁশিয়ারি, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গোটা দেশ ঘুরবেন। কারও ক্ষমতা থাকলে আটকে দেখাক।’

শুধু মাঠে ময়দানে নয়, বাকযুদ্ধেও একে অন্যকে টেক্কা দিচ্ছে বিজেপি-তৃণমূল। যে ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই লড়াই, সেই রোজভ্যালিকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে শাসকদলের আরও কয়েকজন নেতা-নেত্রীর নাম উঠে আসতে পারে বলে সূত্রের খবর।

অন্যদিকে, বাবুল সুপ্রিয়র গ্রেফতারির দাবি তুলেছেন খোদ তৃণমূল নেত্রী। সেই দাবির প্রতিক্রিয়ায় বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, ‘বাবুল সুপ্রিয় যদি টাকা নিয়ে থাকে, তাহলে তার প্রমাণ দিক তৃণমূল ৷ প্রমাণিত হলে নিশ্চয়ই বাবুল সুপ্রিয় সাজা পাবে ৷’

তবে কে কবে গ্রেফতার হবেন, তা সময়ই বলবে। তাহলে কি দুই দলের লড়াই এভাবে চলতেই থাকবে?

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES