নিউটাউনের বাসিন্দাদেরও দিতে হবে সম্পত্তি কর

Dec 07, 2016 06:59 PM IST | Updated on: Dec 07, 2016 06:59 PM IST

#নিউটাউন: এবার পুরকরের আওতায় আসছেন নিউটাউনের বাসিন্দারাও। এর জন্য বিধানসভার চলতি অধিবেশনে একটি সংশোধনী বিল পেশ করতে চলেছেন পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। নিউটাউনে চালু হচ্ছে সম্পত্তি কর। এই সম্পত্তি কর আদায় করবে নিউটাউন-কলকাতা ডেভলপমেন্ট অথরিটি।

সম্পত্তির ৩০ শতাংশ হারে এবার থেকে কর দিতে হবে নিউটাউন ও লাগোয়া এলাকার বাসিন্দাদের। বুধবার বিধানসভার অধিবেশনে নিউটাউন কলকাতা ডেভলপমেন্ট অথরিটি অ্যামেন্ডমেন্ট বিল পেশ করে রাজ্য সরকার। অধিবেশনে বিরোধীরা দাবি করেন, কোনও পুরনিগম বা কর্পোরেশনের মধ্যে থেকে কর আদায় করুক NKDA। তবে তাদের সেই দাবি ধোপে টেকেনি। পাস হয়ে যায় বিল। এই বিলের মধ্যে রয়েছে ইউনিট এরিয়া ট্যাক্স। অর্থাৎ নির্দিষ্ট এলাকার ভিত্তিতে ট্যাক্স দিতে হবে বাসিন্দাদের।

নিউটাউনের বাসিন্দাদেরও দিতে হবে সম্পত্তি কর

দ্য নিউটাউন - কলকাতা ডেভেলপমেন্ট অথরিটি অ্যামেন্ডমেন্ট বিল - ২০১৬ নামে ওই সংশোধনী বিলের সাহায্যে ২০০৭-এর মূল আইনটির বেশ কিছু সংশোধন করা হচ্ছে। যার অন্যতম হল, নিউটাউনের পরিষেবা প্রদানকারী সংস্থা এনকেডিএ-কে সম্পত্তি বা পুরকর আদায়ের ক্ষমতা দেওয়া। ২০০৮ সাল থেকে ওই উপনগরীতে বসবাস শুরু হয়। তবে এতদিন কেন সেখানে কোনও কর আদায় করা করা হত না। যদিও পানীয় জল, রাস্তাঘাট সংস্কার, জঞ্জাল পরিষ্কারের মতো পরিষেবা দিতে এনকেডিএ-র বছরে প্রায় ৮০ কোটি টাকা খরচ হয় বলে সংস্থা সূত্রে খবর। তৃণমূল কংগ্রেস সরকার ক্ষমতায় আসার পর পঞ্চায়েত ও পুর এলাকায় কোনও জলকর আদায় করা হয়নি। পুরকরের অঙ্কও বাড়েনি দীর্ঘদিন। সরকারের এই জনপ্রিয় সিদ্ধান্তের খেসারত দিচ্ছে হচ্ছে পুরসভাগুলিকে।

যদিও, নিউটাউন নিয়ে আইন সংশোধন প্রসঙ্গে পুরমন্ত্রী জানিয়েছেন ওই উপনগরীর দ্রুত উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে পর্যন্ত এবং ধারাবাহিক অর্থের সংস্থানের প্রয়োজন। দেশেও সমস্ত স্বশাসিত উন্নয়ন সংস্থা এ ভাবেই অর্থের সংস্কার করে থাকে।

কী ভাবে পুরকর আদায় হবে নিউটাউনে?

নগরোন্নয়ন দফতরের তৈরি করা বিলে জানানো হয়েছে সেখানে প্রথম থেকেই ইউনিট এরিয়া পদ্ধতিতে কর আদায় করা হবে। এই পদ্ধতির বৈশিষ্ট্য হল, পরিষেবা ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার নিরিখে শহরকে কয়েকটি এলাকায় ভাগ করে নেওয়া। সেইমতো, প্রতিটি এলাকার জন্য বর্গফুট পিছু পুরকর নির্ধারণ করে দেওয়া হয়। নাগরিকদের কাজ, সেই হিসেব মেনে নিজের বাড়ির পুরকর নির্ধারণ করে তা জমা দেওয়া। নাগরিকদের ধার্য করা পুরকর সঠিক কিনা, পুরসভা তা পরে খতিয়ে দেখবে। সরকারি সূত্রে জানা গিয়েছে, নিউটাউনের অ্যাকশন এরিয়া ১, ২, ৩ এই ভাবে ভাগ করে নেওয়া হয়েছে।

এছাড়া আবাসিক ও বাণিজ্যিক এলাকা ও সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক্টের জন্য পৃথক পুরকর নির্ধারণ করা হবে। ঠিক হয়েছে, পরিষেবা দিতে যে অর্থ খরচ হয়, পুরকর বাবদ সেই টাকাই নাগরিকদের কাছ থেকে আদায়ের চেষ্টা করা হবে। ইউনিট এরিয়া পদ্ধতিতে পুরকর চালুর আইনি উদ্যোগ কয়েক বছর আগেই নেওয়া হয়েছে কলকাতা পুরসভায়। কিন্তু, নাগরিকদের বড় অংশের আপত্তিতে ওই পদ্ধতিতে পুরকর আদায়ের সিদ্ধান্ত এখনও কার্যকর করেনি তৃণমূল কংগ্রেসের পুরবোর্ড। এ বছর অক্টোবরে তা চালু করা হবে বলে মেয়র ঘোষণা করলেও এখনও তা চালু করা হয়নি ৷

অন্যান্য পুরসভাতেও একই পদ্ধতিতে পুরকর আদায়ের লক্ষ্যে আইন সংশোধন করা হলেও তা কার্যকর হয়নি। নিউটাউনের ক্ষেত্রে একই উদ্যোগ নিচ্ছে কেন সরকার? নগরোন্নয়ন দফতরের ব্যাখ্যা, কলকাতা সহ অন্য পুরসভাগুলির থেকে নিউটাউনের চরিত্রগত ফারাক বিস্তর। এখানে মানুষ কোনও করই দেন না। অন্য পুরসভায় নাগরিকরা চালু ব্যবস্থায় স্বস্তি বোধ করছেন। নিউটাউনে যেহেতু কর আদায় হয় না, তাই সেখানে প্রথম থেকেই ইউনিট এরিয়া পদ্ধতি চালু করতে সমস্যা হওয়ার কথা নয়।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES