‘পুরোটাই ষড়যন্ত্র,এসবই দিদির কীর্তি’, টেট কাণ্ডে ধৃত জয়প্রকাশের অভিযোগ

Jan 15, 2017 10:17 AM IST | Updated on: Jan 15, 2017 10:17 AM IST

#কলকাতা: এবার উলটপুরান ৷ রোজভ্যালিকাণ্ডে দলের দুই সাংসদের গ্রেফতারির পর থেকেই তৃণমূল নেত্রী ও শাসকদলের মুখে বিজেপির বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ শোনা গিয়েছে ৷ কিন্তু এবার খোদ বিজেপি নেতার মুখে শোনা গেল রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ ৷

টেট প্রতারণার অভিযোগে ধৃত বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল ও তৃণমূল নেত্রীর বিরুদ্ধে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ করেন ৷

‘পুরোটাই ষড়যন্ত্র,এসবই দিদির কীর্তি’, টেট কাণ্ডে ধৃত জয়প্রকাশের অভিযোগ

রবিবার ধৃত বিজেপি নেতাকে বিধাননগর মহকুমা আদালতে পেশ করা হবে। টেট মামলায় আরও জিজ্ঞাসাবাদ করতে জয়প্রকাশকে হেফাজতে চেয়ে আবেদন করবে পুলিশ। তার আগে ইলেক্ট্রনিক্স কমপ্লেক্স থানা থেকে বিধাননগর উত্তর থানায় আনার পথে সংবাদমাধ্যমকে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, ‘পুরোটাই ষড়যন্ত্র,এসবই দিদির কীর্তি’৷

সুপ্রিম কোর্টে মামলা করার জন্য টেট প্রার্থীদের থেকে টাকা তোলার অভিযোগে শনিবার বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারকে গ্রেফতার করা হয়। ম্যারাথন জেরার পর তাঁকে গ্রেফতার করে বিধাননগর উত্তর থানার পুলিশ। ধৃত বিজেপি নেতাকে রবিবার বিধাননগর মহকুমা আদালতে পেশ করা হবে।

টাকা নিয়ে টেট পরীক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার করা হল বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারকে। শনিবার প্রায় সাত ঘণ্টা জেরার পর তাঁকে গ্রেফতার করে বিধাননগর উত্তর থানার পুলিশ। কী অভিযোগ জয়প্রকাশের বিরুদ্ধে?

- ২০১৪ সালে এসএসসি টেট দুর্নীতি নিয়ে আন্দোলন চালাচ্ছিলেন চারকিপ্রার্থীরা

- সেসময় তাঁদের সঙ্গে দেখা করেন তৎকালীন কংগ্রেস নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার

- বলেন, 'শুধু বিক্ষোভে কাজ হবে না। লড়তে হবে আইনি পথে'

- সুপ্রিম কোর্টে মামলার প্রস্তাব দিয়ে আন্দোলনকারীদের থেকে ১০ লক্ষ টাকা চান বলেও অভিযোগ

- জয়প্রকাশের হাতে দু'দফায় ৭ লক্ষ ২০ হাজার টাকা তুলে দেন টেটের চাকরিপ্রার্থীরা

- কিন্তু জয়প্রকাশ মামলাও করেননি, টাকাও ফেরত দেননি বলে অভিযোগ

- টাকা চাইতে গেলে হুমকি দেওয়ার অভিযোগও ওঠে বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে

- ২০১৬-র ২৮ অগাস্ট জয়প্রকাশের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন অরূপরতন রায় নামে এক চাকরিপ্রার্থী

সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই শনিবার তাঁকে বিধাননগর উত্তর থানার ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, ম্যারাথন জেরায় জয়প্রকাশের বয়ানে একাধিক অসঙ্গতি মেলে। তাঁর বক্তব্যে সন্তুষ্ট না হওয়ায় শেষমেষ বিজেপি নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে, ৪২০ ধারায় প্রতারণা, ৪০৬ ধারায় বিশ্বাসভঙ্গ এবং ৫০৬ ধারায় হুমকি দেওয়ার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES