এরাজ্যে সরকারি হাসপাতালে যা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে তা আর কোথাও নেই: মুখ্যমন্ত্রী

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 17, 2017 07:29 PM IST
এরাজ্যে সরকারি হাসপাতালে যা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে তা আর কোথাও নেই: মুখ্যমন্ত্রী
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 17, 2017 07:29 PM IST

#কলকাতা: হামলার ধাক্কা কাটিয়ে উঠে বৃহস্পতিবার স্বাভাবিক বেসরকারি হাসপাতাল সিএমআরআই। চিকিৎসার গাফিলতির কারণেই মৃত্যু হয়েছে কিশোরীর বলে দাবি করে মৃতের পরিবার ৷ এরপর থেকেই ফের একবার প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে বেসরকারি হাসপাতালের পরিষেবা ৷ অভিযোগ  চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে ব্যবসা বেসরকারি হাসপাতালের। লাগামছাড়া বিলের চাপে নাভিশ্বাস রোগী ও আত্মীয়দের। সরকারি হাসপাতালে প্রায় বিনামূল্যেই চিকিৎসা হয়। কিন্তু বেসকারি হাসপাতালে সেই খরচটাই কয়েক গুন। প্যাকেজের নামে রোগী ভরতি করে হেনস্থার শিকার হন আত্মীয় পরিজনেরা।

এই ঘটনার ঠিক দু’দিন পরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, সরকারি চিকিৎসার পরিষেবার ক্ষেত্রে বাংলায় এখন সেরা ৷ পাশাপাশি শুক্রবার হরিশ পার্কের সভা মঞ্চ থেকে হাসপাতালের সম্পত্তি ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র নিন্দাও করেছেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ ভবানীপুরের হরিশ পার্কে বুস্টার পাম্পিং স্টেশনের উদ্বোধনে উপস্থিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী ৷ এদিন জল অপচয় সম্বন্ধে মানুষকে সচেতন করার পাশাপাশি তুলে আনেন সিএমআরআই হাসপাতালের ঘটনা ৷

হরিশ পার্কে মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘হাসপাতালে ভাঙচুর করার কী প্রয়োজন? সাধ্য অনুযায়ী পরিষেবা দেবে হাসপাতাল ৷ প্রয়োজনে মাটিতে রেখেই ইমারজেন্সি পরিষেবা দেওয়া হবে ৷ মানুষকে পরিষেবা দেওয়াটাই মূল লক্ষ ৷ সব সরকারি হাসপাতালে নিখরচায় পরিষেবা হচ্ছে ৷ যা যা প্রয়োজন তা নিয়ে আমি কথা বলছি, বলব ৷ বেসরকারি হাসপাতাল নিয়েও আমরা বসব ৷ যা যা ব্যবস্থা নেওয়ার তা আমরা নেব ৷ সরকারি হাসপাতালে যা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে ৷ তা আর কোথাও নেই ৷’

এদিন তিনি বলেন, ২২ ফেব্রুয়ারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষগুলির সঙ্গে বৈঠক করবেন তিনি ৷ উপস্থিত থাকবে স্বাস্থ্য ও পুলিশ আধিকারিকরাও ৷ এই ঘটনায় বিরোধীদের দিকে আঙুল তুলে তিনি জানিয়েছেন, ‘যাঁরা ভাঙচুর করছেন, তাঁরা কাজ করতে জানেন না ৷ ৩৫ বছর ধরে কেউ ক্ষমতায় ছিলেন, কেউ দিল্লিতে ক্ষমতায় ছিলেন ৷ কেউ এখনও ক্ষমতায় রয়েছেন ৷ কিন্তু কাজের কাজ কেউ করেননি ৷’

First published: 07:29:25 PM Feb 17, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर