রাজারহাটে ওলা ক্যাবে তুলে নাবালিকাকে অপহরণের চেষ্টা, গ্রেফতার মূল অভিযুক্ত

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Dec 19, 2016 09:21 AM IST
রাজারহাটে ওলা ক্যাবে তুলে নাবালিকাকে অপহরণের চেষ্টা, গ্রেফতার মূল অভিযুক্ত
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Dec 19, 2016 09:21 AM IST

#রাজারহাট: রাজারহাট অপহরণকাণ্ডে পুলিশের জালে মূল অভিযুক্ত ৷ নাবালিকা অপহরণের অভিযোগে অভিযুক্ত ওলা চালক রকিকে সোমবার গ্রেফতার করল পুলিশ ৷ রাতভর তল্লাশি চালিয়ে রাজারহাটের ইসরাইল পাড়া থেকে অভিযুক্ত অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে রাজারহাট থানার পুলিশ ৷ একইসঙ্গে আটক করা হয়েছে অপহরণে ব্যবহৃত ওলা ক্যাবটিকে ৷ অপহরণে রকির সহযোগী অপর অভিযুক্তের খোঁজে চলছে তল্লাশি ৷

রাজারহাটের রাইগাছিতে অপহরণ নাটক। প্রথমে, গভীররাতে নাবালিকাকে অ্যাপ ক্যাবে তুলে অপহরণের অভিযোগ। পরে, খোদ নাবালিকারই দাবি, অপহরণকারীদের একজন তার পূর্বপরিচিত। শুক্রবার রাতে সে ফোনও করে নাবালিকাকে।

অ্যাপ ক্যাবে নাবালিকাকে তুলে অপহরণের ছক কষেছিল রকি। অভিযোগ, শনিবার রাত দুটো নাগাদ রাজারহাটের রাইগাছি এলাকা থেকে অপহরণ করা হয় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে। ভোর সাড়ে চারটে নাগাদ কৈখালি থেকে উদ্ধার হয় অপহৃতা। রহস্যজনক অপহরণকাণ্ডে সময় পেরোতেই বেরোতে থাকে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য।

নাবালিকার দাবি, অভিযুক্তকে আগে থেকে চিনত সে ৷ শনিবার রাতে তাকে ফোন করে দেখা করতে ডাকে অভিযুক্ত ৷ ওই রাতে তাকে জোর করে গাড়িতে তোলা হয় ৷ গাড়িতে ওঠার পর অচৈতন্য হয়ে পড়ে বলে দাবি করেছে নাবালিকা ৷ ঘটনার প্রায় ২ ঘণ্টা পর জ্ঞান ফিরলে বলে বয়ানে জানিয়েছে নাবালিকা। এরপর কোনরকমে বাড়িতে ফোন করে অপহরণের কথা জানায় সে ৷

ঘটনায় অপহরণ ও শ্লীলতাহানির অভিযোগ দায়ের হয়েছে। কিন্তু, কেন অপহরণ করা হল ওই নাবালিকাকে? একাধিক জায়গায় পুলিশের ধোঁয়াশা কাটছে না ।

কেন অপহরণ?

- রাজারহাট-নারায়ণপুরে মামারবাড়ি ওই নাবালিকার

- পুলিশের দাবি, সেখানে রকি নামে এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় নাবালিকার

- রকি তাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়

- পালানোর ছকেই কি রকি ও তার বন্ধু গাড়ি নিয়ে আসে?

- নাবালিকাকে নিয়ে প্রায় ৩ ঘণ্টা ওই ক্যাবে চক্কর দেয় রকি

- পালানোর চেষ্টা ধরা পড়ে যেতেই কি নামিয়ে দেওয়া হয় নাবালিকাকে?

অপহরণের পিছনে আসল কারণ জানতে ধৃতকে জেরা করবে পুলিশ ৷ এদিনই তাকে বারাসত আদালতে তোলা হবে ৷

First published: 09:21:24 AM Dec 19, 2016
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर