মাধ্যমিকের ইতিহাসে নয়া রেকর্ড !

May 27, 2017 03:34 PM IST | Updated on: May 29, 2017 04:25 PM IST

#কলকাতা:  ছোটপ্রশ্নেই এবার রেকর্ড নম্বর মাধ্যমিকে। আটানব্বই শতাংশের বেশি নম্বর পেয়ে সব ইতিহাস বদলে দিয়েছে মেধাতালিকায় প্রথম অন্বেষা পাইন। শুধু তাই নয়, তালিকায় প্রথম পাঁচটি স্থানে থাকা পড়ুয়াদের ঝুলিতে আটানব্বই শতাংশ নম্বর। কোন মন্ত্রে এমন সাফল্য? পর্ষদকর্তাদের মত, প্রশ্নপত্রে মাল্টিপল চয়েস বেশি থাকায় মিলছে ঢালাও নম্বর। সিবিএসসি বা আইসিএসই-র সঙ্গে পাল্লা দিতে এবার দৌড়চ্ছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদও।

সব ইতিহাস বদলে দিল ২০১৭-র মাধ্যমিকের ফলাফল। মেধাতালিকায় প্রথম পাঁচটি স্থানে থাকা পড়ুয়াদের ঝুলিতেই আটানব্বই শতাংশ নম্বর। জীবনের প্রথম বড় পরীক্ষায় এমন সাফল্য বিরল বলেই মানছেন শিক্ষাবিদরা। কীভাবে মিলল এমন সাফল্য?

মাধ্যমিকের ইতিহাসে নয়া রেকর্ড !

কোন পথে রেকর্ড সাফল্য?

- বদল আনা হয়েছে সিলেবাসে

- নতুন পাঠ্যক্রম অনুসারে প্রতি বিষয়ের প্রশ্নপত্রেই থাকছে মাল্টিপল চয়েস

- প্রতি বিষয়ের প্রশ্নপত্রে গড়ে ৪০% ছোট প্রশ্ন

- সিবিএসসি বা আইসিএসই-র ধাঁচে মাধ্যমিকেও প্রশ্ন

- পর্ষদ কর্তাদের মতে, নতুন পাঠ্যক্রমের সঙ্গে পড়ুয়াদের সামঞ্জস্য ঘটেছে, তাই মিলছে এমন চোখধাঁধানো সাফল্য

মাল্টিপল চয়েসের ধাঁচে প্রশ্ন থাকায় বিভিন্ন বিষয়ে এ গ্রেড প্রাপকের সংখ্যা উল্লেখযোগ্য ভাবে বেড়েছে। অর্থাৎ, প্রতি বিষয়ে নব্বই থেকে একশো শতাংশ নম্বর পাওয়ার সংখ্যাও একলাফে অনেকটা বেড়েছে। কয়েকটি বিষয়ের পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট সেই ফলাফল।

সাল বিষয় এ গ্রেড প্রাপকের সংখ্যা

২০১৬ দ্বিতীয় ভাষা ৬ হাজার ১৩৪

২০১৭ দ্বিতীয় ভাষা ১১ হাজার ৪১৯

২০১৬ ইতিহাস ৫ হাজার ৯১০

২০১৭ ইতিহাস ১৯ হাজার ২২৫

২০১৬ ভূগোল ১২ হাজার ৮০৩

২০১৭ ভূগোল ২৮ হাজার ৫৩

আরও পড়ুন

মাধ্যমিকে সর্বকালীন সেরার রেকর্ড গড়ে প্রথম অন্বেষা

নয়া পাঠ্যক্রমের ফরমুলাতেই এবছর মাধ্যমিকের পাসের হারেও নয়া রেকর্ড।

-২০১৬-য় পাসের বার ৮২.৭৪%

- ২০১৭-য় পাসের হার ৮৫.৬৫%

- পূর্ব মেদিনীপুরে পাসের হার সবচেয়ে বেশি

- পূর্ব মেদিনীপুরে পাসের বার ৯৬.০৬%

- পশ্চিম মেদিনীপুরে পাসের হার ৯০.১৮%

দক্ষিণ ২৪ পরগনায় পাসের বার ৯০.৫৪%

- অথচ, কলকাতায় পাসের হার ৮৮.৯৩%

নয়া রেকর্ড গড়লেও, প্রথা ভেঙে এবছরই প্রথম পরবর্তী মাধ্যমিকের সূচি ঘোষণা করতে পারেনি পর্ষদ। মনে করা হচ্ছে, পিছিয়ে যেতে পারে পরবর্তী মাধ্যমিকের সূচি। যদিও, পর্ষদ কর্তাদের মত, দ্রুত ঘোষণা করা হবে পরবর্তী সূচি।

সিবিএসসি বা আইসিএসই-র মতো বোর্ডগুলির সঙ্গে পাল্লা দিতেই ছোট প্রশ্নের আমদানি। আর তাতেই নজরকাড়া সাফল্য মিলতে শুরু করেছে।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES