মোর্চাকে আরও চাপে ফেলতে এবার প্রশাসনের হাতিয়ার ‘হ্যাম রেডিও’

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 27, 2017 07:42 PM IST
মোর্চাকে আরও চাপে ফেলতে এবার প্রশাসনের হাতিয়ার ‘হ্যাম রেডিও’
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 27, 2017 07:42 PM IST

#দার্জিলিং: পাহাড়ে হ্যাম রেডিও ব্যবহার করে নিজেদের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা মোর্চা নেতাদের। পাহাড়ের পরিস্থিতি নিয়ে তৈরি গোয়েন্দা রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে এই তথ্য। মোর্চাকে চাপে ফেলতে এবার সেই হ্যাম রেডিও-কেই হাতিয়ার করছে রাজ্য ৷ মোর্চা নেতাদের মধ্যে যোগাযোগ বন্ধে উদ্যোগী সরকার । সূত্রের খবর, কাজে লাগানো হচ্ছে হ্যাম রেডিও বিশেষজ্ঞদের।

গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে আন্দোলনের আঁচ নিভু নিভু। তাই বিক্ষোভ আর হিংসার পুরনো পথেই নজরকাড়ার চেষ্টা মোর্চার। জিটিএ-কে অস্বীকার করে আজ বিভিন্ন জায়গায় চুক্তির কপি পোড়ানো হয়। পিঠে টিউবলাইট ভেঙে চলে প্রতীকি প্রতিবাদ। জারি ছিল ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগও। পরিস্থিতির ওপর নজর রেখে অবশ্য সংযম দেখায় যৌথবাহিনী।

সিংমারির হিংসার পর মোর্চার আন্দোলনের তীব্রতা কমেছে। কিন্তু, আঁচ যাতে নিভে না যায় সেজন্য ইন্ধন জোগানো জারি। মঙ্গলবার জিটিএ চুক্তির কপি পুড়িয়ে সেই ধারা বজায় রাখল মোর্চা।

এদিন পিনটেল ভিলেজ থেকেই শুরু হয় জিটিএ চুক্তির কপি পোড়ানো। দু’হাজার এগারো সালে পিনটেল ভিলেজেই ওই ত্রিপাক্ষিক চুক্তি সই হয়। এছাড়া দার্জিলিং, মিরিক, কার্শিয়ং, কালিম্পং ও শিলিগুড়িতেও ওই কর্মসূচি চলে। পিঠে টিউবলাইট ভেঙে প্রতীকি প্রতিবাদ জানান মোর্চা সমর্থকরা।

পাহাড়ে জারি হিংসার ঘটনাও। সেবকে সরকারি বাস ভাঙচুর করে মোর্চা। আগুন লাগানো হয় তাগদা বিডিও অফিসেও। কিন্তু, মোর্চার বিক্ষোভ-আন্দোলন নিয়ে সংযমী প্রশাসন। বিক্ষোভকারীদের তাণ্ডব সত্ত্বেও কার্যত ধৈর্যের পরীক্ষা দিয়েছে যৌথবাহিনী।

First published: 07:42:30 PM Jun 27, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर