প্রায় ১০ ঘন্টা চোখে পেরেক নিয়ে ঘুরল কিশোর, ফেরাল শহরের ৫ নামী হাসপাতাল

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jul 16, 2017 09:11 AM IST
প্রায় ১০ ঘন্টা চোখে পেরেক নিয়ে ঘুরল কিশোর, ফেরাল শহরের ৫ নামী হাসপাতাল
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jul 16, 2017 09:11 AM IST

#কলকাতা: বাঁ চোখে গেঁথে রয়েছে পেরেক ৷ রক্তে ভেসে যাচ্ছে গোটা মুখ ৷ যন্ত্রণায় ছটফট করছে একটি শিশুটি ৷ অবস্থা দেখে শিউরে উঠছেন সকলে, তবুও মন ভিজল না হাসপাতালের ৷ ফের প্রকাশ্যে হাসপাতালের অমানবিক মুখ ৷ রেফার রোগ সারল না হাসপাতালগুলির ৷ ১০ ঘণ্টা চোখে পেরেক গাঁথা অবস্থায় রক্তাক্ত শিশুকে নিয়ে হাসপাতালের দোরে দোরে ঘুরল পরিবার ৷ এমন মরণ-বাঁচন সমস্যাতেও মুখ ফেরাল শহরের পাঁচ হাসপাতাল ৷ সংশয়ে ছোট্ট ছেলেটির দৃষ্টিশক্তি ৷

খেলতে গিয়ে চোখে আস্ত একটি পেরেক ঢুকে যায় আট বছরের করিম মোল্লার ৷ দক্ষিণ ২৪ পরগণার জীবনতলার বাসিন্দা করিমের পরিবার রক্তাক্ত ছেলেটিকে নিয়ে ছুটে আসে কলকাতায় ৷ চোখে গেঁথে রয়েছে পেরেক ৷ এমন বীভৎস মরণ-বাঁচন অবস্থাতেও শিশুটিকে চিকিৎসা না করে ফিরিয়ে দিল SSKM, বাঙুর নিউরোলজি, RIO, চিত্তরঞ্জন, NRS-এর মতো শহরের প্রথম সারির পাঁচ হাসপাতাল ৷

ঘণ্টার পর ঘণ্টা ঘুরে ফের NRS হাসপাতালেই নিয়ে আসা হয় শিশুটিকে ৷ পরিবারের চাপে শিশুটিকে ভর্তি নিতে রাজি হয় হাসপাতাল ৷ ততক্ষণে কেটে গিয়েছে প্রায় ১০ ঘণ্টা ৷ শিশুটির দৃষ্টিশক্তি নিয়ে সংশয় ৷ আধঘণ্টার অস্ত্রোপচারে শিশুটির চোখ থেকে পেরেক বের করতে সক্ষম হয় চিকিৎসক ৷ বিপদমুক্ত হলেও শিশুটির দৃষ্টি শক্তি সম্পূর্ণ ফিরবে কিনা সেই নিয়ে রয়েছে আশঙ্কা ৷

প্রশ্ন উঠেছে, শহরের প্রথম সারির পাঁচ হাসপাতালে কেন এমন অবস্থায় রোগীকে ফিরিয়ে দিল ৷ এহেন হাসপাতালগুলিতে এই অস্ত্রোপচারের পরিকাঠামো আছে কিনা তা নিয়েও ধন্দ ৷ অভিযোগ পেয়ে স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তা জানিয়েছেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে ৷

অন্যদিকে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় হাসপাতালগুলিকে বহুবার সতর্ক করেছেন যে রোগীকে ফেরানো যাবে না ৷ তার পরেও যে হাসপাতালগুলির হুঁশ ফেরেনি তা বলাই বাহুল্য ৷

First published: 09:11:05 AM Jul 16, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर