তৃণমূলের বিরুদ্ধেই এবার জমি আন্দোলন শুরু ভাঙড়ে

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 17, 2017 01:42 PM IST
তৃণমূলের বিরুদ্ধেই এবার জমি আন্দোলন শুরু ভাঙড়ে
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 17, 2017 01:42 PM IST

#ভাঙর: রাজ্য রাজনীতিতে উলটপুরান। জমি আন্দোলন এবার তৃণমূলের বিরুদ্ধে। কৃষিজমিতে পাওয়ার গ্রিড প্রকল্পের বিরোধিতা করে ভাঙড়ে বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা। স্থানীয়দের আন্দোলনে যোগ দেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারাও। বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের আলোচনার প্রস্তাবে প্রায় পাঁচঘণ্টা পর ওঠে অবরোধ।

সাড়ে পাঁচ বছর আগে ক্ষমতায় এসেই জমি নীতি তৈরি করেছিল তৃণমূল সরকার। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে ঘোষণা করেছিলেন, জোর করে একছটা জমিও নেওয়া হবে না। যে জমি আন্দোলনকে ভিত করে রাজ্যে পালাবদল ঘটিয়েছিল তৃণমূল, এবার সেই জমিতেই পা হরকাল শাসকদলের। দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার ভাঙড়ে, কৃষিজমিতে পাওয়ার গ্রিড তৈরি করা নিয়ে গ্রামবাসীদের বিক্ষোভের মুখে পড়ল রাজ্য সরকার।

ভাঙড় ২ নম্বর ব্লকের নতুনহাটে ৪০০ মেগাওয়াটের পাওয়ার গ্রিড তৈরি করছে বিদ্যুৎ দফতর। কী পাওয়ার গ্রিড নিয়েই বিবাদ ভাঙড়ে ৷ আশপাশের গ্রামে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য, কৃষি জমিতেই তৈরি হচ্ছে খুঁটি। বেশ কয়েকমাস ধরেই যার প্রতিবাদে আন্দোলনে গ্রামবাসীরা। সম্প্রতি প্রশাসনিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ দেন, একান্ত প্রয়োজন না পড়লে কৃষিজমিতে খুঁটি তৈরি করা যাবে না। এরপরই গতি পায় ভাঙড়ের আন্দোলন ৷

 বুধবার সকাল নটা থেকে পাওয়ার গ্রিড ও আশপাশের এলাকাজুড়ে বিক্ষোভ দেখান গ্রামবাসীরা। অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে শ্যামনগর-লাউহাটি রোড, লাউহাটি-হাড়োয়া রোডের মতো বেশ কয়েকটি রাস্তা। গ্রামবাসীদের বিক্ষোভে যোগ দেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের একাংশ। যারা ছাত্র রাজনীতিতে অতি বামঘেঁষা হিসেবেই পরিচিত।

বিক্ষোভ-অবরোধের আগাম খবর পেয়ে সকাল থেকেই এলাকায় মোতায়েন ছিল বিশাল পুলিশ বাহিনী ও র‍্যাফ। প্রস্তুত ছিল জলকামানও। উত্তেজনা ছড়ানোর আগেই অবশ্য মধ্যস্থতায় এগিয়ে আসেন বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়। আন্দোলনকারীদের বৃহস্পতিবার আলোচনায় ডাকেন তিনি। তবে এলাকায় অশান্তি ছড়ানোর অভিযোগে বহিরাগতদের দিকেই আঙুল তোলেন।

বিদ্যুৎমন্ত্রীর আশ্বাসে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা পর বিক্ষোভ-অবরোধ ওঠে ভাঙড়ের গ্রামগুলি থেকে। তবে যে জমিকে পুঁজি করে তৃণমূলের উত্থান, সেই জমিই আপাতত মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে শাসকদলের।

First published: 05:30:00 PM Jan 11, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर