প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

Feb 13, 2017 02:17 PM IST | Updated on: Feb 13, 2017 02:42 PM IST

#কলকাতা: প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে সমস্যা যেন শেষ হতেই চাইছে না ৷ বহু বাধা ও আইনি জট পেরিয়ে ফল প্রকাশের পরও থামছে না বিতর্ক ৷ বার বার অস্বচ্ছতার অভিযোগ তুলছেন উত্তীর্ণ টেট পরীক্ষার্থীরা ৷

কোথাও প্রশিক্ষিত প্রার্থীরা ডাক না পাওয়ার অভিযোগ তুলছেন, কোথাও কাউন্সেলিংয়ের ডাক পেয়েও নিয়োগপত্র হাতে না পাওয়ার অভিযোগ ৷

প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

সোমবার বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগে অস্বচ্ছতার অভিযোগ নিয়ে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করা হয় ৷ উত্তরে তিনি বলেন, সম্পূর্ণ নিয়ম মেনেই চলছে প্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৷ তবুও যে সব জায়গায় সমস্যা হচ্ছে তা খতিয়ে দেখছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ ৷

একইসঙ্গে প্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীদের উদ্দেশ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ৷ তিনি বলেন, সফল পরীক্ষার্থীদের এবং সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে বার্তা শিক্ষক নিয়োগ নিয়ে কোথাও কোনও বিরূপ ঘটনা ঘটলে তা তৎক্ষণাৎ সরকারের নজরে আনুন ৷ শিক্ষামন্ত্রী আশ্বাস, অভিযোগ পেলে নিশ্চিত উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷ এ মাসের মধ্যেই প্রাথমিক শিক্ষকের শূন্যপদে সমস্ত প্রার্থীদের নিয়োগ শেষ হয়ে যাবে ৷

আরও পড়ুন

মার্চের মধ্যে রাজ্যে ৭২ হাজার শিক্ষকের নিয়োগ সম্পূর্ণ হবে: শিক্ষামন্ত্রী

সম্প্রতি টেট কাউন্সিলিংয়ে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ পেয়ে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় পুরুলিয়ার বিধায়ক শান্তি মাহাতোকে কড়া বার্তা দেন ৷ এমনকী খবর খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শান্তিরাম মাহাতোকে সরকারি কাজে আগ বাড়িয়ে হস্তক্ষেপ না করতে সাবধান করেছেন ৷

তবে তাতে শেষ হচ্ছে না সমস্যা-বিতর্ক ৷ পুরুলিয়ায় সংরক্ষণের আওতাভুক্ত পরীক্ষার্থীদের সংরক্ষণ না দিয়ে নিয়োগে বঞ্চিত করার অভিযোগে বিক্ষোভে সামিল হয় ওবিসি বি ক্যাটাগরির প্রাথমিক টেট উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীরা ৷ রবিবার নিয়োগ পত্র না পেয়ে হুগলী প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সামনে বিক্ষোভ দেখায় ৭২ জন চাকরি প্রার্থী। অভিযোগ, কাউন্সেলিং হয়ে স্কুল চয়েস পর্যন্ত হয়ে গিয়েছে,তাঁদের নিয়োগ পত্র এখনও দেয়নি সংসদ। বর্ধমানেও দুই মহিলা চাকরিপ্রার্থীকে হেনস্তা করার অভিযোগ ওঠে ৷ বাংলা মাধ্যমের নয় বলে ওই দু’জনকে নিয়োগপত্র দিয়েও তাঁদের থেকে সেই চিঠি ফেরত নিয়ে নেওয়া হয় ৷

পুরুলিয়া থেকে বর্ধমান, হুগলি থেকে কলকাতা অভিযোগের ঝড় সর্বত্র ৷

পার্থবাবু এদিন বলেন, চলতি বছরের ১৫ মার্চের মধ্যে রাজ্যের সবস্তরে শিক্ষক নিয়োগ সম্পন্ন হবে ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES