‘নোট বাতিলের পর কেন্দ্রের আরও একটি ঐতিহাসিক ভুল’, GST নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 28, 2017 07:22 PM IST
‘নোট বাতিলের পর কেন্দ্রের আরও একটি ঐতিহাসিক ভুল’, GST নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিক্রিয়া
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 28, 2017 07:22 PM IST

#কলকাতা: GST চালু হতে আর ২ দিনও নেই। এখনই এই প্রক্রিয়া চালু হওয়া নিয়ে সম্মত নয় রাজ্য ৷ বুধবার সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে আরও একবার এই নিয়ে সরব হলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ নোট বাতিলের পর তাড়াহুড়ো করে GST চালু করে আবারও একটি বড় ভুল করতে চলেছে মোদি সরকার ৷ এমনটাই মনে করেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ একইসঙ্গে এর প্রতিবাদে ৩০ জুন সংসদের জিএসটি সেলিব্রেশন বয়কট করছে তৃণমূল সরকার ৷

জিএসটির নামে আর্থিক জরুরি অবস্থার মুখে দাঁড়িয়ে দেশ। কেন্দ্রকে বেনজির আক্রমণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ, জিএসটি নিয়ে ঐতিহাসিক ভুল করছে কেন্দ্র। এই অভিযোগের পাশাপাশি জিএসটি নিয়ে রাজ্যের ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়াচ্ছে রাজ্য। জিএসটিতে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত চলচ্চিত্র শিল্পের জন্য ছাড়ের সিদ্ধান্ত রাজ্যের। জিএসটির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানও বয়কটের সিদ্ধান্ত রাজ্যের।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, ‘দেশের ভয়ঙ্কর দুর্দিন ৷ জরুরি অবস্থার থেকেও ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি ৷ ১৯ জুলাইয়ের মধ্যে অর্ডিন্যান্স করতে হবে ৷ অর্ডিন্যান্স ছাড়া ট্রেজারিতে টাকা ঢুকবে না ৷ GST নিয়ে কেন্দ্রের অনুষ্ঠানে আমাদের কেউ থাকবেন না ৷ যাবেন না মন্ত্রী অমিত মিত্রও ৷’

দেশের বেশিরভাগ ছোট ও মাঝারি সংস্থাই তৈরি নয়। নয়া কর-ব্যবস্থা চালুর পর কি হবে, ভেবে পাচ্ছেন না ছোট ও মাঝারি ব্যবসায়ীরা। ধর্মঘটে যাচ্ছে একাধিক ক্ষেত্র। এই অবস্থায় আবার জিএসটি চালুর দিন পিছিয়ে দেওয়ার আবেদন করে অর্থমন্ত্রকে চিঠি দিচ্ছে রাজ্য।

বারবার জিএসটি পিছিয়ে দেওয়ার আবেদনেও কাজ হয়নি। জিএসটি চালুর প্রক্রিয়া নিয়েই কেন্দ্রকে নজিরবিহীন আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তড়িঘড়ি জিএসটি চালু হওয়ায় নোট বাতিলের মত পরিস্থিতি হতে চলেছে বলেও আশঙ্কা তাঁর।

এরইমাঝে জিএসটি-এর সমালোচনায় এদিন ফেসবুকে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘নোট বাতিলের পর কেন্দ্রের আরও একটি ঐতিহাসিক ভুল ৷ জিএসটি নিয়ে তাড়াহুড়ো আরও একটি ধ্বংসাত্মক পদক্ষেপ ৷ জিএসটি চালুর আর ৬০ ঘণ্টা বাকি ৷ কী হবে এখনও তা কেউ জানে না ৷’

সেখানেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, GST-এর বিষয়ে রাজ্য প্রথমে কেন্দ্রের পাশে থাকলেও এই নয়া কর ব্যবস্থা লাগু করায় যেরকম তাড়াহুড়ো করছে কেন্দ্র তাতে সমর্থন নেই রাজ্য সরকারের ৷ নিজের বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘আমরা প্রথম থেকে জিএসটির পক্ষে ছিলাম ৷ কেন্দ্র যেভাবে জিএসটি চালু করতে চাইছে তা উদ্বেগের ৷ কিছু সময় নিয়ে জিএসটি চালু করার কথা আমরা বারবার বলেছিলাম ৷ কিন্তু কেন্দ্র সে কথায় আমল দেয়নি ৷ বহু জায়গায় মিলছে না ওষুধের মত অত্যাবশকীয় পণ্য ৷ মাঝারি ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বিভ্রান্ত ৷’

জিএসটিতে আপত্তি না থাকলেও কেন্দ্র যেভাবে তা চাপিয়ে দিচ্ছে, তাতেই আপত্তি মুখ্যমন্ত্রীর। সোশ্যাল সাইটেও সেই অবস্থান স্পষ্ট করেন তিনি।

১ জুলাই মধ্যরাত থেকে দেশ জুড়ে চালু হবে নতুন কর কাঠামো। অথচ এখনও তার জন্য তৈরি হতে পারেনি বহু ব্যবসায়ী। সবচেয়ে আতান্তরে মাঝারি ও ছোট শিল্পদ্যোগীরা। GST নিয়ে ফের কেন্দ্রকে চিঠি দিচ্ছে রাজ্য। জিএসটি পিছনোর আর্জিতেই এই চিঠি।

বণিকসভা অ্যাসোচেম চিঠি দিয়ে জানিয়েছে, জিএসটির জন্য তৈরি নয় অন্তত ৭০ লক্ষ শিল্প ইউনিট। এরাজ্যে সংখ্যাটা অন্তত ১০ লক্ষ। অবস্থা এতটাই খারাপ যে ৭২ ঘণ্টার জন্য ধর্মঘটে যাচ্ছে বস্ত্র ব্যবসায়ীরা। এই অবস্থায় ব্যবসায়ীদের পাশে থাকতে চাইছে রাজ্য। GST-র ফলে ক্ষতির মুখে বস্ত্র ব্যবসায়ীরা ৷

তবে অরুণ জেটলি এখনও অনড়। গত সোমবার বণিকসভার অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী জানান, ১ জুলাই জিএসটি চালু হচ্ছে। বহুদিন আগেই জানানো হয়েছিল। তারপরও কেউ কেউ তৈরি নন বলে অভিযোগ। তার একটাই মানে। তিনি তৈরি হতে চান না।

গত সপ্তাহেই জিএসটি নিয়ে আশঙ্কার কথা জানিয়েছে সর্বভারতীয় এক বণিকসভা। পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি ধর্মঘটে যাওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছে গুজরাত, মধ্যপ্রদেশ ও হরিয়ানার বস্ত্র ব্যবসায়ীদের সংগঠন। সবমিলিয়ে চালুর কয়েক ঘণ্টা ধরেও তুঙ্গে জিএসটি বিভ্রান্তি।

কেন্দ্র অনড়। ৩০ জুন জিএসটি উপলক্ষ্যে মধ্যরাতে বিশেষ অধিবেশনও ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। প্রশ্ন হল, তৈরি না হয়ে জিএসটি চালু হলে দায় নেবে তো কেন্দ্র?

First published: 02:47:24 PM Jun 28, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर