নারদকাণ্ডের প্রাথমিক তদন্তে অনেকটাই এগোল CBI

Mar 18, 2017 07:20 PM IST | Updated on: Mar 18, 2017 07:20 PM IST

#কলকাতা: নারদকাণ্ডে প্রাথমিক অনুসন্ধান শুরু সিবিআইয়ের। ব্যাঙ্কে রাখা স্টিং অপারেশনের ফুটেজ শনিবার হেফাজতে নেন তদন্তকারীরা। হেফাজতে নেওয়া হয় ম্যাথুর ফোন-ল্যাপটপ-পেন ড্রাইভ এবং হার্ড ডিস্কও। নারদে দেখানো টাকা ঘুষ না নির্বাচনী অনুদান? স্টিং অপারেশনের সাত ঘণ্টার ফুটেজ খতিয়ে দেখেই এবিষয়ে নিশ্চিত হতে চায় কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা।

ডেডলাইন সোমবার। তার মধ্যে শেষ করতে হবে নারদ-অনুসন্ধানের প্রাথমিক পর্ব। হাইর্কোটের নির্দেশের পর শুক্রবারই নারদকাণ্ডের প্রাথমিক অনুসন্ধান শুরু করে দেয় সিবিআই। শুক্রবার রাতে অনুসন্ধানের ব্লু-প্রিন্ট ছকে ফেলে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। তৈরি হয় আট সদস্যের বিশেষ টিম। শনিবার সকাল থেকে শুরু হয় অপারেশন।

নারদকাণ্ডের প্রাথমিক তদন্তে অনেকটাই এগোল CBI

- সকাল ১০.৩৫ 

স্ট্যান্ড রোডে এসবিআই-এর মূল ব্রাঞ্চে যায় সিবিআই। সঙ্গে ছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল। তাঁর উপস্থিতিতেই ব্যাঙ্কের লকারে রাখা, নারদ স্টিং অপারেশনের ভিডিও ফুটেজ হেফাজতে নেয় সিবিআই টিম। হেফাজতে নেওয়া হয় ম্যাথু স্যামুয়েলের আইফোন, ল্যাপটপ, পেন ড্রাইভ এবং হার্ড ডিস্ক। স্টিং অপারেশন সংক্রান্ত হায়দরাবাদ ও চণ্ডীগড় সিএফএল-এর রিপোর্টও হেফাজতে নেন তদন্তকারীরা  ৷

 বেলা ১১.৪০

 হাইকোর্টে পৌঁছন সিবিআই আধিকারিকরা। হেফাজতে নেওয়া জিনিসপত্রের তালিকা হাইকোর্টে জমা দেন তাঁরা।

দুপুর আড়াইটে নাগাদ নিজাম প্যালেসে ফিরে আসে সিবিআই। সেখানেই নারদ স্টিং অপারেশনের ৪২৮ মিনিটের পুরো ফুটেজ খতিয়ে দেখেন তদন্তকারীরা। খতিয়ে দেখা হয় ভিডিও ফুটেজের কথপোকথনও ৷ ফুটেজের ভাষা যাতে কোনও সমস্যা না হয় তার জন্যও অনুবাদে পটু বিশেষ টিম তৈরি হয়েছে ৷

 জল্পনা আগেই ছিল, তাকেই সত্যি করে গতকালই নারদ মামলার তদন্তভার কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা অর্থাৎ সিবিআইয়ের হাতে তুলে দেয় কলকাতা হাইকোর্ট ৷ আদালতে দায়ের হওয়া তিন জনস্বার্থ মামলার পরিপ্রেক্ষিতে নারদ স্টিং কাণ্ডের ভিডিও ফুটেজকে সত্য বলে মান্যতা দিয়ে  প্রধান ভারপ্রাপ্ত বিচারপতি নিশীথা মাত্রে ও তপোব্রত চক্রবর্তীর ডিভিশন বেঞ্চ রায়ে জানায়, নারদ মামলায় প্রাথমিক তদন্ত করবে সিবিআই ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES