একসপ্তাহ কেটে গেলেও জিএসটি-র সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হিমশিম ব্যবসায়ীরা !

Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Jul 07, 2017 06:27 PM IST
একসপ্তাহ কেটে গেলেও জিএসটি-র সঙ্গে খাপ খাওয়াতে হিমশিম ব্যবসায়ীরা !
Photo : AFP
Siddhartha Sarkar | News18 Bangla
Updated:Jul 07, 2017 06:27 PM IST

#কলকাতা:  এক দেশ - এক কর। জিএসটি চালুর পর কেটে গিয়েছে ১ সপ্তাহ। নতুন করের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে এখন হিমশিম ব্যবসায়ীরা। কেউ মাসে ৩ বার রিটার্ন নিয়ে চিন্তিত। কেউ আবার বুঝতেই পারছেন না ইনপুট ক্রেডিটটা কি বস্তু। জিএসটি নম্বর না থাকলে প্যান ও আধার নম্বর চলবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্র। তা নিয়েও বিভ্রান্তি চরমে।

রাতের ঘুম কেড়েছে জিএসটি। এতদিন যেভাবে ব্যবসা হত, তাই যেন রাতারাতি পাল্টে গিয়েছে। মুর্শিদাবাদ থেকে উত্তর দিনাজপুর, বীরভূম থেকে পশ্চিম মেদিনীপুর - রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ধরা পড়েছে একই ছবি।

খুচরো থেকে পাইকারি ব্যবসায়ী। জিএসটির নিয়মকানুন নিয়ে সঠিক ধারণা নেই অধিকাংশেরই। কেন্দ্র নিয়ম পরিবর্তন করায় বিভ্রান্তি আরও বেড়েছে। প্যান, আধার নিয়ে মাল দিতে চাইছে না হোলসেলার ৷ জিএসটির বদলে অন্য নথিও চলবে। সেটাই অনেকে দিতে পারছে না ৷ ইত্যাদি নানাধরণের সমস্যা চোখে পড়ছে ৷

জিএসটি জমানায় বদলে গিয়েছে বিল তৈরির পদ্ধতি। জিএসটি ধরে জিনিসের দাম কি দাঁড়াবে, তাও স্পষ্ট নয়। বাধ্য হয়েই খুচরো ব্যবসায়ীদের কাছে মাল পাঠানো বন্ধ করেছেন পাইকারী ব্যবসায়ীরা।এক ব্যবসায়ী জানিয়েছেন, ৭ দিন ধরে মাল আসছে না -- যাদের স্টক নেই, তাদের ব্যবসা প্রায় বন্ধ ৷

জিএসটি চালুর পর বেশিরভাগ নিত্যপণ্যের দাম কমবে বলে আশা ছিল। চাল-ডালের দাম কমেনি। উল্টে বেশ কিছু জিনিসের দামই বেড়েছে চড়া হারে। জিএসটি অভ্যস্ত হতে সময় লাগবে, মানছেন প্রায় সব ধরণের ব্যবসায়ী। তবে তার আগে যে বিপুল আর্থিক ক্ষতি তা কিভাবে পূরণ হবে ? আপাতত সেটাই তাদের সবচেয়ে বড় প্রশ্ন ।

First published: 06:22:52 PM Jul 07, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर