‘রাজ্যপাল নরেন্দ্র মোদির অনুগত সৈন্য’, বললেন স্বয়ং বিজেপি নেতাই

Jul 06, 2017 12:28 PM IST | Updated on: Jul 06, 2017 02:55 PM IST

#কলকাতা: রাজ্যপাল-মুখ্যমন্ত্রী ‘রাজসংঘাত’ নিয়ে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি ৷ এরই মধ্যে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর অস্বস্তি বাড়িয়ে রাজ্যপালকে বিজেপির অনুগত সৈনিক বলে অভিহিত করলেন রাজ্যের গেরুয়া বাহিনীরই এক শীর্ষ নেতা ৷

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর রাজ সংঘাত নিয়ে রাজ্য বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার বিস্ফোরক মন্তব্য, ‘নরেন্দ্র মোদির অনুগত সৈনিক কেশরীনাথ ত্রিপাঠী ৷’

‘রাজ্যপাল নরেন্দ্র মোদির অনুগত সৈন্য’, বললেন স্বয়ং বিজেপি নেতাই

রাজ্যপালের রাজনৈতিক পক্ষপাতিত্ব নিয়ে আগে বহু বিতর্ক হয়েছে। এবারের রাজ-সংঘাতে উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী, রাজ্যের বর্তমান রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীকে অস্বস্তিতে ফেলে দিল বিজেপি-ই। কার্যত সিলমোহর দিয়ে দিল রাজ্য সরকারের তোলা অভিযোগেই।

মঙ্গলবার থেকে রাজ্যপাল-মুখ্যমন্ত্রী ‘রাজসংঘাত’ নিয়ে উত্তাল রাজ্য রাজনীতি ৷ মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়েছিলেন, ‘রাজ্যপাল আমাকে অসম্মান করেছেন, বিজেপির হয়ে কথা বলছেন রাজ্যপাল’ ৷ মমতা এই মন্তব্যের পর রাজ্যপাল বিবৃতি দিয়ে জানিয়ে ছিলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর ভাষায় হতবাক !

তবে বুধবার সকাল থেকে যেন রাজ্যপাল-মমতা বিতর্কের রেশ বাড়তে থাকে ৷ এমন দৃশ্য যে কোনও দেশেই বিরল ৷ যেখানে কোনও রাজ্যের রাজ্যপাল এবং মুখ্যমন্ত্রী একেবারে সম্মুখ সমরে নেমে পড়েছেন ৷ পারস্পরিক সৌজন্যতাবোধ তো দূরের কথা, রাজ্যপাল-মুখ্যমন্ত্রী সংঘাত ক্রমশই চরমে উঠেছে ৷ বুধবার নতুন করে বিবৃতি দিয়েছেন রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী ৷ সেখানে সুর নরম করার বদলে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিষোদগারই করা হয়েছে ৷ সেখানে রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠী বলেন, ‘ রাজভবন ও রাজ্যপালকে অপমান করা হয়েছে ৷ মুখ্যমন্ত্রী অপমান করেছেন ৷ রাজভবন মুখ্যমন্ত্রীর অফিস নয় ৷ রাজভবন বিজেপি বা RSS-এরও অফিস নয় ৷’

তবে রাজ্যপালের নতুন বিবৃতি নিয়ে কোনও শব্দই খরচা করেননি মমতা ৷ বুধবার বিকেলে সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যপালের বিবৃতি নিয়ে প্রশ্ন উঠলে, নীরবতাকেই বেছে নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ কিন্তু নীরব নন রাজ্যের শাসক দলের অন্যান্য মন্ত্রীরা ৷

মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায় রাজ্যপালকে বিজেপির তোতাপাখি বলে অভিহিত করেন ৷ বুধবার তিনি বলেন, ‘রাজ্যপাল নতুন করে বিবৃতি দিয়েছেন ৷ রাজ্যপাল বিজেপি-র তোতা পাখি ৷ ওঁর ক’টা মুখ এবং ক’টা মুখোশ সেটা মানুষ জানুক ৷ পদ খোয়ানোর ভয় পাচ্ছেন রাজ্যপাল ৷ তাই বিজেপি-র পক্ষে তেড়ে কথা বলছেন ৷ রাজ্যপাল বলছেন মুখ্যমন্ত্রীর মতোই তাঁর ক্ষমতা ৷ আমার প্রশ্ন আলু আর আলুবখরা কি এক ?’ একইসুরে রাজ্যপাল ও বিজেপির দিকে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও ৷

রাজ্যপাল-মুখ্যমন্ত্রী বিরোধের জল গড়িয়েছে রাইসিনা হিলস পর্যন্ত । গতকাল রাষ্ট্রপতিকে চিঠি দেয় তৃণমূল। এরপরেই রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রী দুজনের সঙ্গেই ফোনে কথা বলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সূত্রের খবর, নিজেদের মধ্যে কথা বলে সমস্যা মিটিয়ে নিতে রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীকে পরামর্শ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

তবে পরিস্থিতি যে দিকে এগোচ্ছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে সমস্যা মিটবে কিনা, সে সন্দেহ থাকছেই। এরই মাঝে বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার এদিনের মন্তব্য রাজ্যপালের অস্বস্তি আরও বাড়িয়ে তুলল তা নিশ্চিত ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES