পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে আগামী লোকসভা নির্বাচন, রাজ্যে বুথ সংগঠনের হাল ফেরাতে মরিয়া বিজেপি

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Mar 23, 2017 08:50 AM IST
পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে আগামী লোকসভা নির্বাচন, রাজ্যে বুথ সংগঠনের হাল ফেরাতে মরিয়া বিজেপি
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Mar 23, 2017 08:50 AM IST

#কলকাতা: পঞ্চায়েত নির্বাচনকে সামনে রেখে আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগে বুথ সংগঠনের হাল ফেরাতে মরিয়া বিজেপি। দিল্লির গুঁতোয় এবার সরব রাজ্য সভাপতি দিলীপ। বৈঠকে ডেকে নিষ্ক্রিয় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে সাফ জানালেন , হয় ঘর ছাড়ো না হলে পার্টি ছাড়ো। রাজ্য কমিটির বৈঠকের ফাঁকে সংগঠনের অবস্থা খতিয়ে দেখতে এপ্রিলের শেষে রাজ্য আসছেন অমিত শাহ।

পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে আগামী লোকসভা নির্বাচন। তৃণমূল স্তরে সংগঠন না তৈরি করতে পারলে কাজের কাজ কিছু হবে না। সেই লক্ষে কাজ শুরু করতে হবে এখনি। দিনদয়াল জন্মশতবর্ষকে সামনে রেখে সেই লক্ষ্যে দেশজুড়ে কর্মসূচি নিচ্ছে বিজেপি।

২৩ শে মার্চ দিল্লিতে প্রস্তুতি বৈঠক।  রাজ্যে ১০ হাজার কর্মীকে বুথে পাঠানোর লক্ষমাত্রা বেঁধে দিয়েছে দিল্লি। ৭ থেকে ২২ জুন, ১৪ রাত ১৫ দিন ঘর ছেড়ে বুথে বুথে কাটাতে হবে বিজেপি পদাধিকারিদের। । পদ রাখতে হলে ঘরের মায়া ছাড়ুন। এপ্রিলে রাজ্য সফরে এসে এবার কর্মীসভার ওপরেই বেশি জোর দিতে চাইছেন অমিত। সেখানেই নিস্ক্রিয় নেতা কর্মীদের কড়া বার্তা শোনাতে চান অমিত শাহ।

রাজ্য থেকে মন্ডল সব নেতাদের উদ্দেশ্যে বার্তা

পদ পেতে বুথ ছেড়ে কলকাতায় রাজ্য দপ্তরে এসে হত্যে দিয়ে পড়ে থেকে লাভ হবে না।

রাজ্যের নেতা হোন বা মন্ডলের পদাধিকারি , যেতে হবে বুথে

দৈনিক ২০০ থেকে ২৫০ টি বাড়ির দরজায় কড়া নাড়তে হবে নেতাদের

ওই হিসেবে ১৫ দিনে গড়ে ৩ থেকে সাড়ে ৪ হাজার বাড়িতে পৌঁছতে হবে নেতাদের

জানতে হবে  এলাকার স্থানীয় নেতা এর আগে তার কাছে এসেছিলেন কি না

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নাম জানেন কি না

কেন্দ্রীয় প্রকল্পের বিষয়ে তার কোন ধারনা আছে কি না

কোন কেন্দ্রীয় প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছেন কি না

কোন কেন্দ্রীয় প্রকল্পের জন্য আবেদন করেছেন কি না

রাজ্যের কোনও প্রকল্পে তিনি অন্তর্ভুক্ত কি না

বিজেপি সম্পর্কে তার কোন ধারনা আছে কি না

সবটাই  হবে কোনও বিধিবদ্ধ রীতিনীতি না মেনেই,  প্রচারের মোড়কে। তবে, সমালোচকদের মতে, রাজ্যের প্রায় ৭৭ হাজার বুথের মধ্যে সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এলাকা বা বুথ গুলিকে আপাতত সরিয়ে রেখেই পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এর বাইরে যে বুথ রয়ছে তার ৩০ শতাংশের কাছাকাছি বুথে বুথ কমিটি রযছে। যেখানে বুথ কমিটিই নেই সেখানে গিয়ে প্রাথমিক ভাবে বুথ কমিটি তৈরি করা ও বুথ সভা করাই লক্ষ্য। একমাত্র যেখানে বুথ কমিটি ও নূন্যতম সংগঠন রয়ছে সেখানেই বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার হতে পারে।

First published: 08:50:32 AM Mar 23, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर