হুইল চেয়ারে প্রবেশ নিষেধ বেলুড় মঠে, মর্মান্তিক অভিজ্ঞতা ফেসবুকে শেয়ার করলেন ভক্ত

Aug 13, 2017 02:32 PM IST | Updated on: Aug 13, 2017 03:11 PM IST

#কলকাতা: শান্তির খোঁজ, অনুপ্রেরণার খোঁজ ৷ মনন, দর্শন ৷ সব মানুষকে একরূপে দেখার মধ্যে দিয়ে ঈশ্বর দর্শন ৷ স্বামী বিবেকানন্দের দর্শনই তো তাই ! কিন্তু সেই স্বামীজিকে এক পলক দেখার জন্য যদি কোনও প্রতিবন্ধী মানুষকে বাধা দেওয়া হয়, তাহলে কোথায় থাকে এই স্বামীজির মতাদর্শের লক্ষ্য !

সম্প্রতি এরকমই এক ঘটনা ঘটল বেলুড়মঠে ৷ আর সেই মর্মান্তিক, দুঃখজনক ঘটনাকে ফেসবুকে মাধ্যমে সবার কাছে পৌঁছে দিলেন স্বামীজিরই ভক্ত ৷ নিজের প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে বেলুড় মঠে বাধার সম্মুখীন হলেন সৈকত বর্মন ৷

হুইল চেয়ারে প্রবেশ নিষেধ বেলুড় মঠে, মর্মান্তিক অভিজ্ঞতা ফেসবুকে শেয়ার করলেন ভক্ত

ফেসবুকে সৈকত লিখলেন, ‘বেলুড় মঠের এই অভিজ্ঞতা ভোলার নয় ৷ ৫ অগাস্ট সন্ধে আরতির সময় আমার প্রতিবন্ধী মেয়েকে নিয়ে বেলুড় মঠে পৌঁছেছিলাম ৷ আমার মেয়ে শারীরিক ভাবে অক্ষম ৷ তাই হুইলচেয়ার ছাড়া কোনওভাবেই তাকে এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা নিয়ে যাওয়া যায় না ৷ কিন্তু বেলুড় মঠের নিরাপত্তারক্ষীরা আমার মেয়েকে মন্দিরে ঢুকতে বাধা দেন ৷ অনেকবার মঠের সন্ন্যাসীদেরকে অনুরোধ করেছি৷ কিন্তু তাঁরা আমার কথা শুনতে চাইনি ৷’

সৈকতবাবু জানান, এই ব্যবহারে আমি হতাশ৷ চোখের জল আর ধরে রাখতে পারিনি ৷ বেলুড়মঠে এই ধরণের অভিজ্ঞতা হবে, তা কখনও স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি ৷

সৈকতবাবু আরও জানান, হুইল চেয়ারে ভিতরে ঢুকতে না দেওয়ার ব্যখা দিতে গিয়ে মহারাজ নাকি জানান, হুইল চেয়ারে জল, কাদা, রাস্তার ধুলো রয়েছে ৷ এতে মঠের মেঝে নোংরা ও অপবিত্র হয়ে যাবে ! গোটা ঘটনায় নির্বাক সৈকতবাবুর পরিবার ৷ নিজের তিক্ত অভিজ্ঞতাকে শেয়ার করতে তাই সাহায্য নিলেন সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটেরই !

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES