উচ্চমাধ্যমিকে ফের টেক্কা জেলার, শীর্ষে হুগলি

May 30, 2017 02:18 PM IST | Updated on: May 30, 2017 03:04 PM IST

#কলকাতা: উচ্চমাধ্যমিকে ফের টেক্কা জেলার। শীর্ষে হুগলি। কলকাতাকে হারিয়ে প্রথম হয়েছে হুগলি জেলার কলেজিয়েট স্কুলের অর্চিষ্মান পানিগ্রাহি । পরীক্ষার ৬১ দিনের মাথায় প্রকাশিত হল ২০১৭-র উচ্চমাধ্যমিকের ফল। পাসের হার ৮৪.২০ শতাংশ। গতবারের তুলনায় পাসের হার বেড়েছে ০.৫৫ শতাংশ। কমেছে ড্রপআউটের সংখ্যা। মেধার টক্করে এগিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলা ।

একইসঙ্গে প্রথম দশের মেধাতালিকা প্রকাশ করল সংসদ ৷ মেধা তালিকায় প্রথম দশে এবার স্থান পেয়েছে ৬৬জন ৷ এর মধ্যে রয়েছে ৫৩ জন ছাত্র ও ১৩ জন ছাত্রী ৷

উচ্চমাধ্যমিকে ফের টেক্কা জেলার, শীর্ষে হুগলি

একই সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী উচ্চমাধ্যমিকে বসেছিল এবার। পরীক্ষা হয়েছিল ১৬৬ বিষয়।

ফলের বিচারে

---মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ৭,৫৬,৬২০

----পাস করেছে ৬,২২,৪৩৫ জন

---- পাসের হার ৮৪.২০ শতাংশ

---গতবারের তুলনায় পাসের হার বেড়েছে ০.৫৫ শতাংশ

---ছাত্রদের পাসের হার ৮৫.১৫ শতাংশ

-----ছাত্রীদের পাসের হার ৮৩.২৬ শতাংশ

---গতবারের তুলনায় ছাত্রীদের পাসের হার বেড়েছে ২ শতাংশ

----কমেছে ড্রপ আউটের সংখ্যা

-----কোনও অসম্পূর্ণ ফল নেই

মাধ্যমিকের পর উচ্চমাধ্যমিকেও জেলার জয়জয়কার। পূর্ব মেদিনীপুরে পাসের হার সবচেয়ে বেশি। নব্বই শতাংশ। নেপালি, সাঁওতালি ও উর্দু ভাষার ছাত্র -ছাত্রীদের এবার উল্লেখযোগ্য ফল হয়েছে।

--উর্দু ভাষার ছাত্রছাত্রীদের পাসের হার ৮০.৬৩ --প্রথম বিভাগে পাসের হার ৯৪. ৪০ শতাংশ

-- ছাত্রদের মধ্যে প্রথম মহঃ ইলজামাম  ৯৪.০৪ শতাংশ

নেপালি ভাষায় পাসের হার ৮৫.২৮ শতাংশ। প্রথম বিভাগে পাশ করেছে ৮৯ শতাংশ। সাঁওতালি ভাষায় পাসের হার ৭৬.৬৮ শতাংশ। প্রথম বিভাগে পাস করেছে ৮৬ শতাংশ।

ভিন্ন ভাষায় উল্লেখযোগ্য ফল---

--উর্দু ভাষার ছাত্রছাত্রীদের পাসের হার ৮০.৬৩

--প্রথম বিভাগে পাসের হার ৯৪. ৪০ শতাংশ

-- ছাত্রদের মধ্যে প্রথম মহঃ ইলজামাম ঃ ৯৪.০৪ শতাংশ

--কলকাতার মোমিন হাইস্কুলের ছাত্র

--ছাত্রীদের মধ্যে প্রথম লাফাৎ নাক ঃ ৯৪.০৪ শতাংশ

--অঞ্জুমান মফিদুল ইসলাম গার্লস হাইস্কুল

-- নেপালি ভাষায় পাসের হার ৮৫.২৮ শতাংশ

--প্রথম বিভাগে পাশ করেছে ৮৯ শতাংশ

--ছাত্রীদের মধ্যে প্রথম সোনি শর্মা ঃ ৮৯ শতাংশ

--দার্জিলিং প্রণামী বালিকা বিদ্যামন্দিরের ছাত্রী

--ছাত্রদের মধ্যে প্রথম রীতেশ তামাং ঃ ৮৮.০৬ শতাংশ

--দার্জিলিং স্কটিশ ইউনিভার্সিটি মিশন ইনস্টিটিউটের ছাত্র

---সাঁওতালি ভাষায় পাসের হার ৭৬.৬৮ শতাংশ

-- প্রথম বিভাগে পাস করেছে ৮৬ শতাংশ

--ছাত্রদের মধ্যে প্রথম উদয় মুর্মূ ঃ ৮৬ শতাংশ

---পশ্চিম মেদিনীপুরের একলব্য মডেল রেসিডেন্সিয়াল স্কুলের ছাত্র

---ছাত্রীদের মধ্যে প্রথম অনুপমা হাঁসদা ঃ ৮১.০৮ শতাংশ

---পুরুলিয়ার বর্ধমান গার্লস স্কুলের ছাত্রী

স্কলারশিপ সংক্রান্ত একটি বিশেষ পেজও এবার প্রকাশ করল পর্ষদ।  www.wbchse.nic.in ওয়েবসাইটে জানা যাবে স্কলারশিপ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য। উচ্চমাধ্যমিকে উত্তীর্ণ পরীক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES