অবশেষে জামিন পেলেন অভিনেতা বিক্রম

Jul 26, 2017 04:13 PM IST | Updated on: Jul 26, 2017 06:36 PM IST

#কলকাতা: গ্রেফতারির ১৯ দিনের মাথায় জামিন পেলেন অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়। বিক্রমের শর্তাধীন জামিন মঞ্জুর করল আলিপুর আদালত। বিক্রমের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের অভিযোগ আনলেও প্রয়োজনীয় প্রমাণ জোগাড়ে ব্যর্থ পুলিশ। ঘটনার দিন রাতে অভিনেতা মদ্যপ ছিলেন বলেও প্রমাণিত হয়নি। জামিন পেলে বিক্রম মামলায় প্রভাব খাটাবেন, এমন অভিযোগও খারিজ করেন বিচারপতি।

আলিপুর আদালতে শর্তসাপেক্ষে জামিন পেলেন অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়। সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুতে বিক্রমের বিরুদ্ধে অনিচ্ছাকৃত খুনের ধারায় মামলা করে পুলিশ। এর আগে বেশ কয়েকবার খারিজ হয়েছিল বিক্রমের জামিনের আবেদন। কিন্তু তদন্তে বেশ কিছু ফাঁকফোকর থাকাতেই বিক্রমের জামিন মঞ্জুর করল আদালত।

অবশেষে জামিন পেলেন অভিনেতা বিক্রম

যে যে ধারায় চার্জশিট পেশ করা হয়েছে-

ধারা অভিযোগ

৩০৪ অনিচ্ছাকৃত খুন

৩৩৮ জেনে বুঝে মারাত্মক আঘাত

২৭৯ বেপরোয়া গাড়ি চালান

৪২৭ সম্পত্তি নষ্ট

এছাড়া মোটর ভেহিকেল অ্যাক্টেও মামলা হয় বিক্রমের বিরুদ্ধে ৷

বিক্রমের বিরুদ্ধে প্রমাণ হিসেবে যা পেশ করা হয়েছিল-

- ৮ জনের গোপন জবানবন্দির নথি

- দুর্ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ

- দুর্ঘটনাগ্রস্ত গাড়ির ফরেনসিক রিপোর্ট

- সেই সময় গাড়ির গতি ১০০ কিমির বেশি ছিল বলে চার্জশিটে উল্লেখ

- অভিনেতার মেডিক্যাল রিপোর্ট

আদালতে বিক্রমের জামিনের বিরুদ্ধে সওয়াল করে সরকারি আইনজীবী বলেন,- ‘বিক্রম তদন্তকারীদের বিপথগামী করেছেন ৷ চলন্ত গাড়িতেও মদ্যপান করেন তিনি ৷ তাঁর গাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছে মদ ৷ প্রভাবশালী অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায় ৷ বাইরে বেরিয়ে সাক্ষীদের প্রভাবিত করতে পারেন ৷ তাই বিক্রমকে হেফাজতে রেখে বিচার চায় পুলিশ ৷’ এর বিরোধীতা করে বিক্রমের আইনজীবী অনির্বাণ গুহঠাকুরতা দাবি করেন, ‘গাড়িতে জলের বোতল পাওয়া গিয়েছে ৷ পুলিশের সিজার লিস্ট তাই প্রমাণ করছে ৷’

বুধবার জামিনের আবেদনের শুনানিতে সওয়ালে বেশ কিছু যুক্তি দেন বিক্রমের আইনজীবী।

বিক্রমের আইনজীবী বলেন,

-বিক্রমের মেডিক্যাল রিপোর্টের কথা চার্জশিটে উল্লেখ নেই। তিনি মদ্যপ ছিলেন বলেও প্রমাণিত হয়নি

-বিক্রম মদ্যপ ছিলেন জেনেও সনিকা তার সঙ্গে গাড়িতে ওঠেন। তাঁকে জোর করেন এমন প্রমাণ মেলেনি

-দুর্ঘটনার দিন বিক্রম - সনিকার সঙ্গে নাইটক্লাবে থাকা বন্ধুরাই পুলিশে গোপন জবানবন্দী দেন। নাইটক্লাবে সবাই মদ্যপান করলেও বিক্রম একা দোষী হন কীভাবে?

এরপরই সোনিকা সিং চৌহান মামলায় বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের জামিন মঞ্জুর করে আদালত।

সোনিকা সিং চৌহানের মৃত্যুতে পুলিশি তদন্তে যে গাফিলতি রয়েছে, আলিপুর আদালতের নির্দেশেই তা স্পষ্ট। এই রায়ের পর প্রশ্ন উঠল সোনিকা ও সরকারি আইনজীবীর ভূমিকা নিয়েও।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES