কালীঘাট হামলায় গ্রেফতার অপর অভিযুক্ত, কীভাবে মিলল দীপকের সন্ধান ?

Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 13, 2017 02:24 PM IST
কালীঘাট হামলায় গ্রেফতার অপর অভিযুক্ত, কীভাবে মিলল দীপকের সন্ধান ?
Photo : AFP
Dolon Chattopadhyay | News18 Bangla
Updated:Feb 13, 2017 02:24 PM IST

#কলকাতা: কালীঘাটে জৈন দম্পতির ওপর হামলা, তারপর হাওড়ার গোলাবাড়িতে খোদ হামলাকারীই খুন। এই দুই ঘটনার সাক্ষী দীপক সিং ওরফে সুনীলের নাগাল পেল পুলিশ। সোমবার পূর্বা এক্সপ্রেস থেকে দিল্লি নামতেই তাকে ধরে জিআরপি। গতকাল, গোলাবাড়ির লজের সিসিটিভিতে পাওয়া যায় দীপকের ছবি। সেই সূত্র ধরেই মিলল তার খোঁজ।

একদিকে দম্পতিকে হত্যার চেষ্টা, আরেকদিকে হামলাকারী খুন। দুই ঘটনার সময়ই কি একই ব্যক্তি উপস্থিত ছিল? ঘটনাস্থল থেকে মেলা সিসিটিভি ফুটেজ ও নানা তথ্য প্রমাণ দেখে তদন্তকারীরা প্রায় নিশ্চিত। ঘটনার সময় দীপক সিং ওরফে সুনীল হাজির ছিল দুটি ক্ষেত্রেই।

দুটি ঘটনার মূল কুশীলব সেই দীপকের সন্ধান পেল পুলিশ। সোমবার পূর্বা এক্সপ্রেস দিল্লি পৌঁছতেই তাকে ধরে জিআরপি। কী ভাবে মিলল দীপকের সন্ধান?

- হাওড়ার গোলাবাড়ির লজের সিসিটিভিতে মেলে দীপক সিংয়ের ছবি

- তদন্তকারীরা বিভিন্ন স্টেশনে সেই ছবি দেন

- হাওড়া স্টেশনেও সেই ছবি নিয়ে চলে তল্লাশি

- সিসিটিভিতে দেখা যায়, রবিবার সকাল ৮ টা নাগাদ দীপককে আপ পূর্বা এক্সপ্রেস ধরতে

- দিল্লি জিআরপি-র কাছেও দীপকের ছবি পাঠানো হয়

- সোমবার সকাল ৬.১৫ নাগাদ ট্রেন থেকে দিল্লি নামতেই ধরা হয় দীপককে

হত্যার চেষ্টা ও হামলাকারীর হত্যা দুটি ক্ষেত্রেই এখনও অনেক প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ। দীপকের কাছে সেই রহস্যের চাবি রয়েছে বলেই ধারণা তদন্তকারীদের।

শনিবার রাতে কালীঘাটে জৈন দম্পতির উপর হামলা। অভিযোগ, ছাদে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুনের চেষ্টা করে পূর্ব পরিচিত রোশনলাল বরদিয়া। রবিবার হাওড়ায় একটি গেস্ট হাউজে সেই হামলাকারীরই দেহ উদ্ধার করে গোলাবাড়ি থানার পুলিশ। পুলিশ সূত্রে খবর,

-- শনিবার রাত ১১টায় গেস্ট হাউজে রুম নেয় রোশনলাল বরদিয়া

-- রোশনলালের সঙ্গে ছিলেন সুনীল নামে আরও এক ব্যক্তি

-- রবিবার ভোরে হাউজকিপিং কর্মীরা রুমের দরজা খোলা দেখতে পায়

-- গোলাবাড়ি থানার পুলিশ রোশনলালের দেহ উদ্ধার করে

-- রোশনলালের দেহে একাধিক ছুরির আঘাতের চিহ্ন রয়েছে

-- ঘর থেকে উদ্ধার দু'টি আগ্নেয়াস্ত্র, দু'টি চপার ও একটি কীটনাশকের বোতল

রাতেই জৈন দম্পতির মেয়ের অভিযোগের ভিত্তিতে কালীঘাট থানার পুলিশ রোশনলালের মোবাইল ট্রেস শুরু করে। রবিবার গেস্ট হাউজে দেহ উদ্ধারের পর রিশেপশনে নথিবদ্ধ নাম-ঠিকানা দেখে তদন্ত শুরু করে গোলাবাড়ি থানা। এরপরই কালীঘাট থানায় খবর দেওয়া হয়। হাওড়ায় গিয়ে রোশনলালের দেহ শনাক্ত করে কালীঘাট পুলিশ। কালীঘাট ও হাওড়ার ঘটনায় যোগসূত্র পান তদন্তকারীরা। কিন্তু শনিবার হামলা? কীভাবেই বা হামলাকারীর মৃত্যু? উত্তরের খোঁজে দুটি আলাদা মামলা রুজু করেছে পুলিশ। তদন্তকারীদের নজর মৃত রোশনলালের সঙ্গী সুনীলের উপর।

First published: 02:24:16 PM Feb 13, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर