দুই বাংলার মৈত্রীতে নতুন যোগ খুলনা এক্সপ্রেস ও বাস , যাত্রা শুরু শনিবার

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Apr 07, 2017 08:56 PM IST
দুই বাংলার মৈত্রীতে নতুন যোগ খুলনা এক্সপ্রেস ও বাস , যাত্রা শুরু শনিবার
প্রতীকি ছবি
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Apr 07, 2017 08:56 PM IST

#কলকাতা: আরও মজবুত হল ওপার ও এপারের বন্ধন ৷ দুই বাংলার সম্পর্কে নতুন সংযোজন ৷ মৈত্রী এক্সপ্রেসের পর বাংলাদেশ যাওয়ার জন্য যাত্রা শুরু করছে আরও একটি ট্রেন।

 ওপার বাংলায় যাওয়া এবার আরও সহজ। শনিবার নতুন ট্রেন কলকাতা-খুলনা এক্সপ্রেসের উদ্বোধন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। একইসঙ্গে কলকাতা-খুলনা বাসের যাত্রাপথ বৃদ্ধির সূচনাও হবে শনিবার।

ভারত-বাংলাদেশ। প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে সৌহার্দ্যের সম্পর্ক। যদিও তিস্তা চুক্তি নিয়ে চাপানউতোর রয়েছে। এরমধ্যেই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিতে ভারত সফরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিতে নতুন পদক্ষেপ দু’দেশের মধ্যে। মৈত্রী এক্সপ্রেস আগেই ছিল। শনিবার উদ্বোধন করা হবে কলকাতা-খুলনা এক্সপ্রেস নামে নতুন ট্রেনের।

কলকাতা-খুলনা এক্সপ্রেস

-কলকাতা স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়বে

-মাঝে পেট্রাপোল ও বেনাপোলে ট্রেন থামবে

-কলকাতা থেকে খুলনা পর্যন্ত ট্রেন যাবে

-নতুন ট্রেনে ১০টি বগি থাকবে

-এর মধ্যে ২টি বগি ফার্স্ট ক্লাস ও ৮টি বগি চেয়ার কার

-নতুন ট্রেনে সমস্ত এলএইচবি (লিঙ্ক হফম্যান বুশ) কোচ

-সমস্ত বগিই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত

-জুলাই থেকে যাত্রীদের যাতায়াত শুরু

-খুলনা পৌঁছতে সময় লাগবে ৫ ঘণ্টা

-এখনও ভাড়া নির্ধারিত হয়নি

কলকাতা-খুলনা এক্সপ্রেসের নিরাপত্তায় থাকছে আরপিএফ-র কমান্ডো বাহিনী।

২০১৫ সালে দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে কলকাতা আগরতলা ভায়া ঢাকা বাস চালু হয়েছিল। যাত্রী সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় কলকাতা-খুলনা বাসটি শনিবার থেকে ঢাকা পর্যন্ত যাবে। যাত্রাপথ বৃদ্ধির সূচনা করবেন দু’দেশের প্রধানমন্ত্রী ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

বাসের যাত্রাপথ বৃদ্ধি

- কলকাতা-খুলনা বাস যাবে ঢাকা পর্যন্ত

-ঢাকা যেতে বাসে সময় লাগবে ১২ ঘণ্টা

-সল্টলেক থেকে বাস ছাড়বে

-ভাড়া হবে ১২০০ টাকা

- বাসের দায়িত্বে ওয়েস্টবেঙ্গল ট্রান্সপোর্ট করপোরেশন

- বেসরকারি সংস্থা শ্যামলী পরিবহণ বাস চালাবে

-কাল নবান্ন থেকে বাস ছাড়বে

হাসিনার ভারত সফরের সময় দু’দেশের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থায় এই উদ্যোগ দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতিতে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে।

First published: 08:56:08 PM Apr 07, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर