হেনরিজ আইল্যান্ডে তলিয়ে গিয়ে মৃত ৩, উদ্ধার দেহ

Jun 25, 2017 09:12 AM IST | Updated on: Jun 25, 2017 09:13 AM IST

#বকখালি: বকখালির হেনরিজ আইল্যান্ডে স্নান করতে নেমে রহস্যজনকভাবে তলিয়ে মৃত্যু হল একই পরিবারের তিনজনের ৷ তিনজনেরই মৃত্যু হয়েছে ৷ গতকাল উদ্ধার হয়েছিল একজনের দেহ ৷ রবিবার সকালে নামখানা থেকে আরও দু’জনের দেহ উদ্ধার করল পুলিশ ৷ মৃতদের নাম সোমরাজ গুপ্ত, সমরিন গুপ্ত ও ঋষিতা প্রামাণিক ৷

শনিবার নতুন গাড়ি কিনে কলকাতা থেকে বকখালি বেড়াতে গিয়েছিল গুপ্ত ও প্রামাণিক পরিবার। শনিবার সকাল আটটায় বকখালির হেনরিজ আইল্যান্ডে পৌঁছন তাঁরা। ওঠেন ছুটি লজে।

হেনরিজ আইল্যান্ডে তলিয়ে গিয়ে মৃত ৩, উদ্ধার দেহ

এরপর দুপুর তিনটে নাগাদ সোমরাজ গুপ্ত, তাঁর ৯ বছরের মেয়ে সমরিনা সমুদ্রে স্নান করতে নামেন। সঙ্গে নামেন সোমরাজের বন্ধু সুমন্ত প্রামাণিকের স্ত্রী ঋষিতা। সমুদ্রের পারে দাঁড়িয়ে ছিলেন সোমরাজের স্ত্রী তন্দ্রিমা গুপ্ত। তাঁর দাবি, সমুদ্রে আচমকায় ভাঁটার টানে তলিয়ে যান তিন জন।

সোমরাজের স্ত্রী তন্দ্রিমা কলকাতা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর। খবর পেয়েই ফ্রেজারগঞ্জ থানার পুলিশ তল্লাশিতে স্পিড বোট ও লঞ্চ নামায়। রাতের দিকে নামখানার হরিপুর ঘোষ খাল থেকে উদ্ধার হয় একটি দেহ। সেটি ঋষিতা প্রামাণিকের দেহ বলে মনে করছে পুলিশ। এদিন সকালে নামখানায় পৃথক দুই জায়গায় ভেসে ওঠে সোমরাজ ও সমরিনা ৷

মৃতা ঋষিতা প্রামাণিক মৃতা ঋষিতা প্রামাণিক

- গুপ্ত পরিবারের পৈতৃক বাড়ি কালীঘাটের সতীশ মুখার্জী রোডে। বর্তমানে সোমরাজ গুপ্ত থাকেন কসবায়। সোমরাজ গুপ্ত নৌসেনার প্রাক্তন চিকিৎসক। বর্তমানে কল্যাণীর IISER-এ মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে কর্মরত।

- সোমরাজ গুপ্তর স্ত্রী তন্দ্রিমা কলকাতা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর হিসেবে কর্মরত।

- তাঁদের ৯ বছরের মেয়ে সমরিনা গুপ্ত।

- পেশায় চিকিৎসক হলেও, সোমরাজ গুপ্তর নেশা ছিল ফটোগ্রাফি। প্রতিমাসে নতুন ক্যামেরার লেন্স কিনে ছবি তুলতে বেড়িয়ে পড়তেন।

সোমরাজ গুপ্ত ও পরিবার সোমরাজ গুপ্ত ও পরিবার

কৈখালির বাসিন্দা প্রামাণিক পরিবার। সুমন্ত প্রামাণিকের স্ত্রী ঋষিতা প্রামাণিক।

এই সময় দার্জিলিং যাওয়ার কথা ছিল গুপ্ত পরিবারে ৷ পাহাড়ের এই পরিস্থিতি দেখে দার্জিলিং ট্যুর বাতিল হয় ৷ বন্ধুর পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে সোমরাজ গুপ্ত নতুন গাড়ি কিনে বকখালি বেড়াতে গিয়েছিলেন ৷ অশান্ত পাহাড় এড়িয়ে আপাত শান্ত সমুদ্রকেই বেছেছিল এই দুই পরিবার ৷ কে জানত সমুদ্রই এই তিনজনের প্রাণ কেড়ে নেবে ৷

RECOMMENDED STORIES