বঙ্গোপসাগরে বিশাল নৌবহর পাঠাল ভারতীয় নৌসেনা

Jul 08, 2017 12:07 PM IST | Updated on: Jul 08, 2017 12:07 PM IST

#নয়াদিল্লি: বেশ কয়েকদিন ধরেই ভারত ও চিনের মধ্যে টানাপোড়েন অব্যাহত ৷ ভারত, ভুটান ও চিনের মধ্যবর্তী সীমান্তে ডোকা লা এলাকায় ঢুকে পড়েছে চিনা আর্মি ৷ জানা গিয়েছে, সেখানে রাস্তার তৈরির কাজও শুরু করে দিয়েছে চিন ৷ সেই কাজে দিল্লি ও থিম্পু বাধা দিতেই সমস্যার সূত্রপাত ৷ এরপর থেকেই দু’দেশের মধ্যে উত্তেজনা চলছে ৷ দুই দেশের তরফেই ওই এলাকায় উল্লেখযোগ্যভাবে সেনা মোতায়ন বাড়িয়েছে ৷ মুখোমুখি প্রায় তিন হাজার ভারতীয় ও চিনা সেনা। যে কোনও মুবূর্তে দু’দেশের মধ্যে শুরু হতে পারে যুদ্ধ ৷ এরকম পরিস্থিতি চিনকে চাপে রাখতে বঙ্গোপসাগরে বিশাল নৌবহর পাঠিয়েছে ভারতীয় নৌসেনা।

১০ তারিখ থেকে ভারত মহাসাগরে শুরু হতে চলেছে ‘মালাবার এক্সারসাইজ’। ভারতের পাশাপাশি আমেরিকা ও জাপানের নৌসেনা যৌথভাবে মহড়ায় নামতে চলেছে ৷ এই মহড়ায় ভারত এখনও পর্যন্ত সব থেকে বড় নৌবহর পাঠাচ্ছে বলে খবর।

বঙ্গোপসাগরে বিশাল নৌবহর পাঠাল ভারতীয় নৌসেনা

এই বিষয়ে চিনের তরফে জানানো হয়েছে, মালাবার মহড়ার নিশানা কোনও ‘তৃতীয় পক্ষ’ নয় বলেই আশা করা হচ্ছে ৷ এশিয়া মহাদেশের দেশগুলির নিরাপত্তা ও শান্তির কথা মাথায় রাখা হবে বলেও আশা করা হচ্ছে ৷

১৯৯২ সালে আমেরিকার সঙ্গে মালাবার মহড়া শুরু হয় ৷ এরপর ২০১৪ থেকে জাপান প্রতিবাছর তাতে অংশগ্রহণ করে ৷ ২০১৩ সাল থেকে ছ’জি সাবমেরিন ভারত মহাসাগরে পাঠিয়েছে চিন ৷ ডোকা লা এলাকায় রাস্তা তৈরিতে বাধা দিতেই চিনের সঙ্গে চাপানউতোর শুরু হয় ভারতের ৷ এই নিয়ে ভুটানের সঙ্গেও মতবিরোধ চলছে চিনের ৷ কিন্তু কেউ পিছু হঠতে রাজি নয় ৷ সিকিম নিয়ে গত কয়েকদিনে দু’দেশের সম্পর্ক তলানিতে এসে পৌঁছেছে ৷

ভারত জানিয়েছে ডোকালাম ভুটানের ৷ চুক্তি অনুযায়ী ভুটানকে সামরিক ও কূটনৈতিক সমর্থন দেওয়ার কথা ভারতের ৷ তাই সেনা প্রত্যাহার করার কোনও প্রশ্নই নেই ৷

অন্যদিকে চিনের অভিযোগ, ভারত পাঁচশিল চুক্তি লঙ্ঘন করেছে। সেনা সরিয়ে ভারত এই ভুল ঠিক করে নিক বলেও জানিয়েছে তারা। এরই উত্তরে ভারত তাদের অবস্থান স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES