গণপিটুনির শিকার শালবনি থানার আইসি, রাতভর পুলিশি তল্লাশিতে গ্রেফতার ৪

Apr 21, 2017 05:00 PM IST | Updated on: Apr 21, 2017 05:00 PM IST

#শালবনি: রাতভর তল্লাশি। রীতিমত পুলিশি তাণ্ডব। দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে গ্রামবাসীদের তুলে নিয়ে যায় পুলিশ।  আসল অপরাধীদের না ধরে  নিরীহ গ্রামবাসীদের হেনস্থা করছে পুলিশ।  অভিযোগ শালবনির ভাদুতলার স্থানীয় বাসিন্দাদের।   গতকাল পথ দুর্ঘটনায় দুই স্কুল পড়ুয়ার  মৃত্যুর পর বেধড়ক মারধর করা হয় শালবনি থানার আইসিকে।  জনরোষের হাত থেকে রেহাই মেলেনি কনস্টেবলেরও। ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আটকের সংখ্যা এখনও পর্যন্ত আট।

বৃহস্পতিবার রীতিমত গণপিটুনির শিকার হতে হয় শালবনি থানার আইসি বিশ্বজিৎ সাহাকে।  প্রথমে কথা কাটাকাটি। তারপর ধাক্কাধাক্কি। পরে লাথি। রাস্তায় ফেলে চলে বেধড়ক মারধর।   প্রাণে বাঁচাতে দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। পিছু ধাওয়া করে ফের রাস্তায় ফেলে মার।

গণপিটুনির শিকার শালবনি থানার আইসি, রাতভর পুলিশি তল্লাশিতে গ্রেফতার ৪

শুক্রবার একেবারে উল্টো ছবি। থমথমে এলাকা। অধিকাংশ দোকানপাট বন্ধ। বেশিরভাগ গ্রাম পুরুষশূন্য। বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ পিকেট। এলাকাবাসীর অভিযোগ, বৃহস্পতিবার সন্ধে থেকেই ভাদুতলা সংলগ্ন বাড়ুয়া, কর্ণগড়, কেরানিচটি-সহ বিভিন্ন গ্রামে রীতিমত পুলিশি তাণ্ডব চলে। তল্লাশির নামে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয় গ্রামবাসীদের।

ঘটনায় চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আটক বেশ কয়েকজন। স্থানীয়দের অভিযোগ, বৃহস্পতিবারের ঘটনায় যারা যুক্ত তাদের না ধরে নিরীহ দের তুলে নিয়ে গেছে পুলিশ।

মেদিনীপুরের নার্সিংহোমে ভরতি আইসির শারীরিক অবস্থার ক্রমে উন্নতি হচ্ছে।  দুর্ঘটনায় আহত চার পড়ুয়ার চিকিৎসা চলছে এসএসকেএমে। আইসিইউ তে ভরতি লক্ষ্মী মুর্মু ও বিকাশ হেমব্রম । জেনারেল বেডে ভরতি সাথী মান্ডি ও শুভ্রজিৎ রাইদাস। সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আহত ছাত্রের বাবা।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES