নোট বাতিলে ৩-৪ লক্ষ কোটি কর ফাঁকির টাকা জমা পড়েছে ব্যাঙ্কে

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 10, 2017 03:47 PM IST
নোট বাতিলে ৩-৪ লক্ষ কোটি কর ফাঁকির টাকা  জমা পড়েছে ব্যাঙ্কে
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 10, 2017 03:47 PM IST

#নয়াদিল্লি: কেন্দ্রের নোট বাতিল সিদ্ধান্তে নগদ সঙ্কটে নাজেহাল দেশ ৷ ৫০ দিন কেটে গেলেও স্বাভাবিক নয় পরিস্থিতি ৷ নোট বাতিল ইস্যুতে কেন্দ্র-বিরোধী বাদানুবাদে এখনও উত্তপ্ত রাজনৈতিক মহল ৷ তবে নোট বাতিলের মরশুমে লাভবান ব্যাঙ্ক ৷ দেশজুড়ে পাহাড়প্রমাণ টাকা জমা পড়েছে ব্যাঙ্কে ব্যাঙ্কে ৷ গোটা দেশে বেনামী অ্যাকাউন্টগুলিতে কর ফাঁকির প্রায় তিন-চার লক্ষ কোটি টাকা জমা পড়েছে ৷ হিসাব বহির্ভূত টাকার হিসাব নিতে আয়কর দফতরের নজরে একাধিক ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ৷

আয়কর দফতরের জারি করা একটি বিবৃতি অনুযায়ী, ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল হওয়ার পর প্রায় অব্যবহৃত ৬০ লক্ষ ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ২ লক্ষ টাকার বেশি নগদ জমা পড়েছে ৷ সব মিলিয়ে প্রায় তিন থেকে চার লক্ষ কোটি টাকা জমা পড়েছে যার জন্য কোনও আয়কর দেওয়া হয়নি ৷

কর ফাঁকির টাকার একটি বিস্তারিত হিসাব দিয়ে আয়কর দফতর জানিয়েছে, শুধু মাত্র ভারতের উত্তর-পূর্ব অঞ্চলের ব্যাঙ্কগুলিতে ১০,৭০০ কোটিরও বেশি টাকা জমা পড়েছে ৷ দেশের বিভিন্ন সমবায় ব্যাঙ্কে মোট জমা পড়া নগদের পরিমাণ ১৬ হাজার কোটি টাকা ৷ নোট বাতিলের পর থেকে এযাবৎ সমস্ত ব্যাঙ্কে টাকার লেনদেন খতিয়ে দেখছে ইডি ও আয়কর দফতর ৷ তাতেই প্রকাশ্যে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷

আয়কর দফতরের পর্যবেক্ষণ, নোট বাতিলের ফলে বেড়ে গিয়েছে ধার পরিশোধের অঙ্ক ৷ কালো টাকা সাদা করতে নগদে মেটানো হয়েছে ধার ৷ ৮ নভেম্বরের পর গোটা দেশে নগদে প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকা ধার পরিশোধ হয়েছে ৷ নোট বাতিল ঘোষণার পর নিষ্ক্রিয় জনধন অ্যাকাউন্ট এবং জিরো ব্যালান্স অ্যাকাউন্টে ২৫,০০০ কোটি টাকা জমা পড়েছে ৷

গত বছর ৮ নভেম্বর জাতির উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিলের কথা ঘোষণা করেন ৷ রাতারাতি বাতিল হয়ে যায় ৫০০ ও ১০০০-এর পুরনো নোট ৷ নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে পুরনো নোট জমা দেওয়ার জন্য ৩০ ডিসেম্বর অবধি সময় দিয়েছিল রির্জাভ ব্যাঙ্ক ৷ নির্ধারিত সময় শেষ হওয়ার পর জমা পড়া নগদের খতিয়ানেই প্রকাশ্যে আসে এই তথ্যগুলি ৷

First published: 03:40:07 PM Jan 10, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर