চূড়ান্ত গাফিলতি: কাশির সিরাপের জায়গায় রোগীকে কাটা-ছেঁড়ার লোশন দিলেন চিকিৎসক!

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 09, 2018 07:55 PM IST
চূড়ান্ত গাফিলতি: কাশির সিরাপের জায়গায় রোগীকে কাটা-ছেঁড়ার লোশন দিলেন চিকিৎসক!
Doctor
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 09, 2018 07:55 PM IST

#মহিষাদল: সরকারি হাসপাতালের চিকিৎসকের চূড়ান্ত গাফিলতি। কাশির সিরাপের জায়গায় রোগীকে কাটা-ছেঁড়ার লোশন দিলেন খোদ বিএমওএইচ। পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলের বাসুলিয়ার গ্রামীণ হাসপাতালের ঘটনা। সাতদিন খাওয়ার পর ওষুধ ফুরিয়ে যাওয়ায় দোকানে কিনতে গেলেই আসল ঘটনা সামনে আসে। দোষ স্বীকার করলেও অভিযুক্তের সাফাই, লোশন খেলে শরীরের ক্ষতি হয় না।

কাটা-ছেঁড়া সারানোর লোশন। নাম পভিডন আয়োডিন। কাশির সিরাপ ভেবে এই লোশনই সাতদিন ধরে খেলেন বৃদ্ধ রোগী। কাঠগড়ায় পূর্ব মেদিনীপুরের মহিষাদলের বাসুলিয়ার গ্রামীণ হাসপাতালের বিএমওএইচ মোহনচন্দ্র ঘোড়ই। কফের সঙ্গে রক্ত পড়ায় ২৫ ডিসেম্বর হাসপাতালে ভর্তি হন গ্রামের বাসিন্দা সুধীর সামন্ত।

৪ জানুয়ারি পর্যন্ত চিকিৎসা চলার পর ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে। অভিযোগ, বাড়ি আসার সময় বিএমওএইচ তাঁর প্রেসক্রিপশনে লেখেন কাশির সিরাপ সাল বুটেমল। কিন্তু হাতে দেন কাটা-ছেঁড়ার লোশনের স্যাম্পেল। রোগী ইংরেজি পড়তে না পারায় গন্ডগোল বুঝতেও পারেননি। ডাক্তারের নির্দেশ মেনে নিয়মিত ওষুধ খান তিনি। ফুরিয়ে যাওয়ার পর দোকানে কিনতে গেলেই ঘটনা সামনে আসে।

পিঠ বাঁচাতে দোষ মেনে নেন অভিযুক্ত মোহনচন্দ্র ঘোড়ই। তবে তাঁর সাফাই, লোশন খেলে নাকি শরীরের কোনও ক্ষতি হয় না। খোদ বিএমওএইচের এধরণের গাফিলতিতে শাস্তি চাইছে রোগীর পরিবার। ব্লক স্বাস্থ্য দফতরে ঘটনা জানানো হয়েছে।

First published: 07:55:02 PM Jan 09, 2018
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर