‘অসমে বাঙালিদের উপর অত্যাচার চলছে’, ফের বিজেপি সরকারকে আক্রমণ মমতার

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 09, 2018 07:15 PM IST
‘অসমে বাঙালিদের উপর অত্যাচার চলছে’, ফের বিজেপি সরকারকে আক্রমণ মমতার
নিজস্ব চিত্র
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jan 09, 2018 07:15 PM IST

 #আলিপুরদুয়ার: অসমের নাগরিকপঞ্জি বিতর্কে ফের বিজেপি সরকারকে আক্রমণ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এবার সরাসরি অসমে বাঙালি নিগ্রহের অভিযোগে সরব মুখ্যমন্ত্রী। বাঙালি আবেগকে হাতিয়ার করেই অসমবাসী বাঙালিদের ভরসা দিলেন তিনি। সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর আশ্বাস, অসমে বিপদে পড়া নাগরিকদের পাশে থাকবে রাজ্য প্রশাসন।

আগে স্রেফ আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন। এবার সরাসরি অসমে বাঙালি নিগ্রহের অভিযোগে বিজেপি সরকারকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর। অসম ঘেঁষা কুমারগ্রামে জনসভায় বিজেপি সরকারকে কার্যত হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর।

এদিন তিনি বলেন, ‘বাংলা ভাল থাকলে, অসমও ভাল থাকবে ৷ অসম আমার প্রতিবেশী রাজ্য ৷ অসমে কোনও গন্ডগোল হলে বাংলায় প্রভাব ৷ অসমে বাঙালিদের উপর অত্যাচার চলছে ৷ অসমে দীর্ঘদিন আছেন অনেক বাঙালি ৷ তাঁদের নাম নাগরিকত্ব থেকে বাদ দেওয়া হচ্ছে ৷’

অসমে বাঙালি নিগ্রহের ঘটনায় সোমবারই সেরাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও রাজ্যপালের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছে দুটি সংগঠন।

প্রথম দফায় নাগরিকপঞ্জিতে অন্তত ৫ লক্ষ নাম বাদ পড়েছে বলে অভিযোগ ৷ এদের বড় অংশই কমিশনে অভিযোগ দায়ের করেছেন ৷ নাম না ওঠায় সীমান্ত অঞ্চলে বাঙালিদের বাড়ি ছাড়তে হুমকি দেওয়া হচ্ছে ৷ এই অভিজ্ঞতার মুখে পড়েছেন অসমের বিশিষ্ট বাঙালিরাও ৷

তারপরই মুখ্যমন্ত্রীর এই বার্তা তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করা হচ্ছে। অসমে অত্যাচারিত মানুষের পাশে থাকারও আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর। তিনি বলেন, ‘অসমে অত্যাচারিত বিহারের বাসিন্দারাও ৷ তাঁদের নামও বাদ দেওয়া হচ্ছে ৷ অসম থেকে অত্যাচারিত হয়ে কেউ চলে এলে, আলিপুরদুয়ারবাসীরা তাড়িয়ে দেবেন না ৷’

ভিনরাজ্যে একের পর এক বাঙালির ওপর আক্রমণের ঘটনাতেও সরব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ‘বাংলার অনেকে গুজরাতে থাকেন ৷ গুজরাতের অনেকে বাংলায় থাকেন ৷ গুজরাত বাঙালিদের খুন করে ৷ আমরা গুজরাতের মানুষদের খুন করি না ৷ এটাই গুজরাতের সঙ্গে আমাদের ফারাক ৷’

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় রাজ্যবাসীকে আরও সতর্ক থাকারও পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর। এক্ষেত্রে গেরুয়া শিবিরই যে মূল লক্ষ্য, তাও এদিন স্পষ্ট মুখ্যমন্ত্রীর বার্তায়।

First published: 07:15:20 PM Jan 09, 2018
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर