‘সুপার এমারজেন্সির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দেশ’, ফের কেন্দ্রকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর

Jul 17, 2017 05:30 PM IST | Updated on: Jul 17, 2017 05:30 PM IST

#কলকাতা: সুপার এমারজেন্সির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দেশ। যুক্তরাষ্টীয় কাঠামো ভেঙে রাজ্যের অধিকারে বাধা দিচ্ছে বিজেপি সরকার। মোদি প্রশাসনের বিরুদ্ধে আবারও বিস্ফোরক অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, জাতীয় নিরাপত্তার মতো ইস্যুতে রাজনীতি হচ্ছে। গো-রক্ষার নামে অত্যাচার থেকে সিকিম সংকট - মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে, এইসব ইস্যুতেই সংসদের সরব হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস।

যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় আঘাত, জিএসটি- নোট বাতিলের মতো বিষয় তো ছিলই। এবার কেন্দ্রের বিরুদ্ধে আরও মারাত্মক অভিযোগ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তিনি এদিন বলেন, ‘সুপার এমাজেন্সির মতো পরিস্থিতি ৷ দেশটাকে বিক্রি করে দেওয়ার চেষ্টা চলছে ৷ GST নিয়ে জটিলতা বাড়ছে ৷ মানুষকে হেয় করা হচ্ছে ৷ তাই মীরা কুমারকেই ভোট দেব ৷ বিরোধী শক্তিরা এক হন ৷’

‘সুপার এমারজেন্সির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে দেশ’, ফের কেন্দ্রকে আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর

গো - রক্ষার প্রসঙ্গেও সরব মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়, ‘ গো-রক্ষার নামে যে অত্যাচার চলছে ৷ যে ভাবে দাঙ্গা লাগানোর চেষ্টা চলছে ৷ তার প্রতিবাদ করবে তৃণমূল কংগ্রেস ৷ কিছু দল বিজেপিকে মদত দিচ্ছে ৷’

রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে জাতীয় নিরাপত্তা নিয়েও সমঝোতা করছে কেন্দ্র বলে অভিযোগ। দার্জিলিং ও বসিরহাটের গণ্ডগোলের সূত্রেই মুখ্যমন্ত্রীর এই সতর্কতা। তিনি প্রশ্ন তোলেন,  ‘বর্ডার কেন খুলে রাখা হল?এসএসবি - বাহিনী কি করছিল? জামাত ঢুকল কিভাবে? RAW কী করছে,NIA কী করছে?’

একই সঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে নিজস্ব বাহিনী তৈরিরও অভিযোগ করেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, ‘বর্ডার এজেন্সিগুলোকে কাজে লাগাচ্ছে ৷ ইচ্ছাকৃত পরিস্থিতি উত্তপ্ত করা হচ্ছে ৷ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে ৷ কেন বিজেপির সংগঠন দুর্গা বাহিনী তৈরি করছে? বহিরাগতের সাহায্যেই এই কাজ হচ্ছে ৷ কেন্দ্রের কাজ কি বাহিনী তৈরি করা? বাংলায় এসব চলবে না ৷’

সিকিম নিয়ে চিনের সঙ্গে উত্তেজনা তুঙ্গে। বহুদিনের বন্ধু ভুটানকেও পাশে পাচ্ছে না ভারত। কেন্দ্রের নীতিগত ব্যর্থতাতেই এই পরিস্থিতি বলেও অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রীর।

কেন্দ্রের এইসব ব্যর্থতার তুলে ধরে সংসদে সরব হবে তৃণমূল। একইসঙ্গে টানা আন্দোলনের মাধ্যমে প্রতিবাদ চালাতে জনপ্রতিনিধিদের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর। কোনও পরিস্থিতিতেও বিজেপির বিরুদ্ধে সুর নরমের প্রশ্ন নেই। সোমবার আরও একবার তা স্পষ্ট হল মুখ্যমন্ত্রীর বার্তায়।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES