ফের মেধা কেলেঙ্কারি বিহারে, সুর-তাল ও অন্তরা কী জানেই না মিউজিক টপার

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 02, 2017 01:43 PM IST
ফের মেধা কেলেঙ্কারি বিহারে, সুর-তাল ও অন্তরা কী জানেই না মিউজিক টপার
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Jun 02, 2017 01:43 PM IST

#পটনা: ইতিহাসের পুনরাবৃতি ৷ ফের টপার কেলেঙ্কারি বিহার বোর্ডে ৷ রুবি রায়ের পর এবার গণেশ কুমার ৷ বিহারের উচ্চমাধ্যমিকে কলা বিভাগে প্রথম স্থান অধিকার করেছে গণেশ কুমার ৷ কিন্তু শীর্ষস্থান দখলকারী এই পড়ুয়ার মেধা ও যোগ্যতা নিয়ে তৈরি হয়েছে প্রশ্ন ৷

রাষ্ট্রবিজ্ঞানের ক্লাসে রান্নাবান্না শেখানো হয়, এই তথ্য জানিয়েছিলেন গত বছর বিহার বোর্ডে কলা বিভাগের সেরা রুবি রায় ৷ তাঁর উত্তরসূরী ঝাড়খণ্ডের গিরিডির বাসিন্দা গণেশ কুমারও একই নজির রাখলেন ৷ বিষয় ‘সঙ্গীত’ নিয়ে প্রথম হওয়া রাজনন্দন সিংহ-জগদীপ নারায়ণ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের এই ছাত্র জানেনই না সুর-তাল-লয় কী! অন্তরা কাকে বলে আর কাকেই বা বলে মুখরা সে সম্পর্কে কোনও জ্ঞানই নেই গণেশের ৷

সংবাদ মাধ্যমের প্রতিনিধির অনুরোধে হারমোনিয়াম বাজিয়ে সারেগামাপা-এর নামে যা শুনিয়েছেন তাকে কোন দেশে সরগম বলে তার উত্তর দিতে গুগলও ব্যর্থ৷ অথচও সঙ্গীতে ৭০-এর মধ্যে ৬৫ নম্বর পেয়েছে সে ৷ সবথেকে আশ্চর্যের কথা, গণেশের স্কুলে সঙ্গীত শেখানোর কোনও ব্যবস্থাই নেই ৷

হিন্দিতে ১০০-এর মধ্যে ৯২ পেয়েছে গণেশ কুমার ৷ রাজনন্দন সিংহ-জগদীপ নারায়ণ উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও বিশ্বাস করতে পারছেন না যে তাদের স্কুলের ছাত্র গণেশ কুমার প্রথম হয়েছে ৷ বিহার বোর্ডের ফল ঘোষণার পর থেকেই নিরুদ্দেশ ছিল এই পড়ুয়া ৷ হঠাৎই বৃহস্পতিবার সংবাদ মাধ্যমের সামনে হাজির হয় সে ৷ উল্লেখ্য, পরীক্ষার সময় ফর্মে উল্লেখিত তথ্য অনুসারে গণেশের জন্ম ১৯৯৩ সালে ৷ হিসেব মতো এখন সে ২৪ বছরের যুবক, সাধারণত ১৭-১৮ বছর বয়সে পড়ুয়ারা উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দেন ৷

সবমিলিয়ে সন্দেহজনক প্রশ্ন অনেক ৷ যার উত্তরের খোঁজে দরকার তদন্ত ৷ ইতিমধ্যেই ইডি বিহার বোর্ডে পরীক্ষায় দুর্নীতি নিয়ে চার প্রিন্সিপ্যালের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগ দায়ের করেছে ৷

গত বছর তদন্তে বিহার বোর্ডের দুর্নীতির বড়সড় রূপ সামনে আসে ৷ ২০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে অযোগ্য ছাত্র- ছাত্রীদের পরীক্ষায় মেধা তালিকায় স্থান দেওয়া হত বলে জানায় BSEB চেয়ারম্যান লালকেশ্বর প্রসাদ সিং ৷ তদন্তকারীরা দুর্নীতির অভিযোগে প্রাক্তন BSEB চেয়ারম্যান লালকেশ্বর প্রসাদ সিংকে ও স্ত্রী ঊষা সিনহাকে গ্রেফতার করে ৷

গত বছর বিহার বোর্ড পরীক্ষায় টপার দুর্নীতিকাণ্ডে বিতর্কের ঝড় উঠেছিল দেশজুড়ে ৷ ২০ লক্ষ টাকার বদলে পরীক্ষায় ফার্স্ট করা হয়েছিল অযোগ্য ছাত্র- ছাত্রীদের  ৷ ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর থেকেই প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে বিহারের শিক্ষা ব্যবস্থাকে ৷ এর জেরে এবছরের পরীক্ষায় অনেকটাই সাবধানী ছিল বিহার বোর্ড ৷

মঙ্গলবার বিহার বোর্ডের দ্বাদশ শ্রেনীর ফলপ্রকাশ হয়েছে ৷ এই বছরের পরীক্ষায় ৬৪ শতাংশ দ্বাদশ শ্রেণীর পরীক্ষায় ফেল করেছে ৷

First published: 01:43:13 PM Jun 02, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर