শিশুদের চ্যানেলে নিষিদ্ধ জাঙ্কফুডের বিজ্ঞাপন

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 29, 2017 01:09 PM IST
শিশুদের চ্যানেলে নিষিদ্ধ জাঙ্কফুডের বিজ্ঞাপন
Photo : AFP
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:May 29, 2017 01:09 PM IST

#নয়াদিল্লি: মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনে। আলপিন টু এলিফ্যান্ট। চকচকে মোড়ক। আকর্ষণীয় ভাষা। নিরন্তর লোভের হাতছানি। কখনও এটাই হয়ে ওঠে বিপদের অশনি-সংকেত। যেমন শিশুদের চ্যানেলে জাঙ্ক ফুডের বিজ্ঞাপন। মশলাদার পটেটো চিপস থেকে ব্রন্ডেড পিৎজা-বার্গার। কোল্ডড্রিঙ্কস থেকে ফ্রায়েড চিকেন। বিজ্ঞাপনের প্রভাব পড়ছে ছোটদের মনে। শরীরেও। এমনসব জিভে জলা আনা খাবারদাবারের বিজ্ঞাপন ছোটদের চ্যানেলে দেখানো বন্ধ করার সুপারিশ করেছে দেশের খাদ্যসুরক্ষা ও নিয়ামক সংস্থা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বেশিরভাগ জাঙ্ক ফুডে আছে অতিরিক্ত চিনি, নুন ও ফ্যাট। আর বিপদ সেখানেই। এই বিশেষজ্ঞ কমিটিকে দিয়ে এই নিয়ে সমীক্ষা করিয়েছে এফএসএসএআই।

জাঙ্কফুডের বিপদ 

---শিশুদের স্থূলতা ও বিভিন্ন ক্রনিক অসুখ

---মানসিক সমস্যা ও হজম-পাকযন্ত্রের ক্ষতি

----ছোট থেকে খাদ্যাভাস বদলে যাওয়া

ছোটবেলার অভ্যাসই যে একটু বেশি বয়সে মারাত্মক বিপদের কারণ, সে ব্যাপারে নিশ্চিত বিশেষজ্ঞরা। তাই জাঙ্ক ফুডের প্রতি আকর্ষণ কমাতেই ছোটদের চ্যানেলে এই ধরণের বিজ্ঞাপন বন্ধের সুপারিশ করেছে বিশেষজ্ঞ কমিটি।

বিশেষজ্ঞ কমিটির সুপারিশ

--- ছোটদের বিভিন্ন চ্যানেল কিংবা পছন্দের সিরিয়াল বা কার্টুন চলাকালীন জাঙ্কফুডের বিজ্ঞাপন বন্ধ করতে হবে

----এই ধরণের খাবারের প্রতি ছোটদের আকর্ষণ করা সবচেয়ে সহজ

----চটকদার মোড়ক ও মনভোলানো কথায় সহজেই আকৃষ্ট হয় শিশুরা

বিশেষজ্ঞদের মতে এই ধরণের জাঙ্কফুডে শুধু মাত্রাতিরিক্ত চিনি , নুন-ই নয়। থাকে স্যাচুরেটেড ফ্যাট ও ট্রান্স-ফ্যাটি অ্যাসিড। কী ক্ষতি করে এই ধরণের খাবার,

স্যাচুরেটেড ফ্যাটে ক্ষতি

----ছোট থেকে অতিরিক্ত ফ্যাট হৃদযন্ত্র , ফুসফুস , রক্তনালীতে বিপদ ডেকে আনে

---বড় হলে হাই ব্লাড প্রেসার , হাইপার টেনশনের আশঙ্কা থাকে

বিশেষজ্ঞদের সুপারিশ মানা হলে ছোটদের প্রিয় কার্টুন চ্যানেল থেকে হয়ত এই ধরণের বিজ্ঞাপন বন্ধ করা সম্ভব। কিন্তু তাতে কী বিপদ আটকানো যাবে? স্কুল বা বাড়ির সামনে অথবা পথে যেতে রাস্তার ধারে এই ধরণের বিজ্ঞাপন থেকে কী আদৌ শিশুদের চোখ আটকানো সম্ভব ?

তাছাড়া, নিউক্লিয়ার ফ্যামিলিতে চাকরীরত বাবা-মা সন্তানের আবদার মেটাতে যখন-তখন এই ধরণের খাবার তাদের হাতে তুলে দিচ্ছেন। তাই খাদ্যসুরক্ষা ও নিয়ামক সংস্থার সুপারিশে আদৌ কাজ হবে কিনা তা নিয়ে অনিশ্চয়তা থেকেই যাচ্ছে। তবে তামাকজাত পণ্যের বিজ্ঞাপনের মত জাঙ্ক ফুডের বিজ্ঞাপন চলাকালীন যদি বিধিবদ্ধ সতর্কীকরণ থাকে, তাহলে হয়ত আরেকটু সচেতন হবেন অবিভাবকরা।

First published: 01:09:48 PM May 29, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर