উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে নোটবন্দি কোনও প্রভাব ফেলবে না, সোজাসাপটা অমিত শাহ

Jan 29, 2017 09:35 PM IST | Updated on: Jan 30, 2017 10:42 AM IST

#নয়াদিল্লি: সামনেই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন ৷ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই রাজ্যে গড় দেশ দশক ধরে ক্ষমতায় নেই বিজেপি। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে মোদি ম্যাজিকে ভর করে রাজ্যে ৮০টির মধ্যে ৭১টি আসনে জিতেছিল দল। তাই প্রায় ১৫ বছর পর উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনী প্রচার জোরকদমে নেমেছে গেরুয়া শিবির ৷ অমিত শাহের রণনীতির উপর ভিত্তি করে উত্তরপ্রদেশে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার দাবি করছে বিজেপি ৷ নেটওয়ার্ক ১৮-এর গ্রুপ এডিটার ইন চিফ রাহুল যোশিকে দেওয়া এক্সক্লুজিভ সাক্ষাৎকারে অমিত শাহ জানালেন, নোট বাতিল ও সার্জিক্যাল স্ট্রাইক নিয়ে নানা কথা ৷

প্রশ্ন: নোট বাতিলের ঘটনা কি উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে প্রভাব ফেলবে?

উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনে নোটবন্দি কোনও প্রভাব ফেলবে না,  সোজাসাপটা অমিত শাহ

অমিত শাহ: এটা বলা ঠিক হবে না যে উত্তরপ্রদেশের মানুষ, নোট বাতিলের ঘটনাকে মাথায় রেখেই ভোট দিতে যাবেন ৷ কারণ, সরকারের বিরোধিতা করার মতো উত্তরপ্রদেশের মানুষের কাছে অনেক ইস্যু রয়েছে ৷ খনন মাফিয়াদের অত্যাচার ও দুর্নীতি দিন দিন বেড়েই চলছে ৷ জাতীয় সড়ক বানানোর জন্য সরকার প্রতি কিলোমিটারে ১৮ কোটি টাকা খরচ করে ৷ অন্যদিকে উত্তরপ্রদেশে ৩১ কোটির টেন্ডার বেরিয়ে যায় ৷ সাধারণ মানুষ জানতে চান এই ১৩ কোটি টাকা কোথায় যাচ্ছে? এর পরেও যদি সেখানকার মানুষ, ভোটগ্রহনের সময় নোট বাতিলের কথা মাথায় রাখেন, তার জন্য একেবারে তৈরি বিজেপি ৷

প্রশ্ন: আপনার কী মনে হয় নোট বাতিলের সিদ্ধান্ত কালো টাকা লেনদেন আটকাতে পেরেছে?

অমিত শাহ: যদি কেউ, এত বড় একটা সিদ্ধান্তকে তিন মাসের মধ্যে বিচার করতে চায় তাহলে একটু বেশি তাড়াতাড়িই বিচার করা হবে ৷ এটা খুব বড় একটা রাজনীতির অংশ ৷ আমাদের সরকার যখন শপথ নিয়েছিল সেদিন থেকেই কালো টাকার বিরুদ্ধে আমাদের লড়াই শুরু হয়েছিল ৷ এসআইটি রিপোর্ট থেকে নোট বাতিল ৷ দেশ থেকে কালোটাকা হাটাতে আমাদের পদক্ষেপ শুরু ৷ যদি কেউ বলে নোট বাতিলের তিন মাসের মধ্যেই সব ঠিক হয়ে যাবে, তাহলে তাঁকে বলব অর্থশাস্ত্র পড়ে ফেলুন ৷

প্রশ্ন: নোট বাতিলের পর টাকার লেনদেন একটা সিস্টেমে চলে এসেছে ৷ শোনা যাচ্ছে পুঁজিপতিরা নাকি এবারও চোখে ধুলো দিয়ে কালো টাকাকে সাদা করেছে ৷ তাহলে কি আবার ভবিষ্যতে কালো টাকা নিয়ে নতুন কোনও পদক্ষেপ নেবে সরকার?

অমিত শাহ: এরকম একটা গুজব সত্যিই রটেছে ৷ অনেকে মনে করছেন ব্যাঙ্কে টাকা রাখলেই সব কালো টাকা সাদা হয়ে গিয়েছে ৷ সরকার কঠোর আইন নিয়ে এসেছে ৷ কালো টাকা থেকে কেউ-ই বাঁচতে পারবে না ৷ আমরা দেশ ও বিদেশ সব রকমের কালোটাকার ওপরই প্রহার করেছি ৷ এটা অবশ্যই বলব, কালোটাকা ব্যাঙ্কে রাখলেই তা সাদা হয়ে যাবে না ৷ এটা সত্যি যে টাকার লেনদেন যদি একটা সিস্টেমের মধ্যে চলে আসে, তাহলে গরীব মানুষদের উপকার হবে ৷ এতদিন কালোটাকা পুঁজিপতিদের কাছে রাখা ছিল ৷ অন্তত তা এবার ব্যাঙ্কে এল ৷

প্রশ্ন: মোদি সরকারের সবচেয়ে বড় পদক্ষেপ ছিল পাকিস্তানের ওপর সার্জিক্যাল স্ট্রাইক ৷ এর পর থেকে কী পাকিস্তানের প্রতি ভারতের নজর আরও কঠোর হবে ?

অমিত শাহ: পাকিস্তানের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক কেমন হবে, তা একেবারেই পাকিস্তানের ভারতের প্রতি কী ভাবছে তার ওপর নির্ভর করবে ৷ আমরা চাই ৷ সবার সঙ্গেই ভালো সম্পর্ক তৈরি করতে ৷ শান্তিই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য ৷ কিন্তু আমাদের এই ভাবনাকে যদি কেউ দুর্বলতা ভাবে, তাহলে ভুল করবে ৷ সীমান্তের নিরাপত্তা, জওয়ানদের প্রাণের সঙ্গে একেবারেই ছেলেখেলা নয় ৷ কোনও সমঝোতাতেই নেই এ ব্যাপারে ৷ বিশ্বের নজরে এখন ভারত ভালো জায়গায় রয়েছে ৷ যা ভারতের জন্যই ভবিষ্যতে ভালো৷

সার্জিক্যাল স্ট্রাইককে নিয়ে অনেকে আমাদের সরকারের সমালোচনা করেছে ৷ তবে এটাই যে দেশের বেশিরভাগ সাধারণ মানুষ আমাদের সঙ্গে আছে ৷ আপনি নিশ্চয়ই রাহুল গান্ধির মন্তব্য শুনেছেন বা পড়েছেন৷ উনি বলেছিলেন, ভারতীয় সেনাদের রক্ত নিয়ে ব্যবসা করা হচ্ছে ৷ এই ধরণের মন্তব্যে যে কী বলা উচিত? তা আজও বুঝে উঠতে পারি না ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES