জোটকে কটাক্ষ, দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ইউপিতে সরকার গড়ার দাবি অমিত শাহ-র

Jan 29, 2017 09:07 PM IST | Updated on: Jan 30, 2017 10:39 AM IST

#নয়াদিল্লি: সামনেই উত্তরপ্রদেশে বিধানসভা নির্বাচন ৷ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই রাজ্যে গড় দেশ দশক ধরে ক্ষমতায় নেই বিজেপি। ২০১৪ লোকসভা নির্বাচনে মোদি ম্যাজিকে ভর করে রাজ্যে ৮০টির মধ্যে ৭১টি আসনে জিতেছিল দল। তাই প্রায় ১৫ বছর পর উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনী প্রচার জোরকদমে নেমেছে গেরুয়া শিবির ৷ অমিত শাহের রণনীতির উপর ভিত্তি করে উত্তরপ্রদেশে দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় আসার দাবি করছে বিজেপি ৷ নেটওয়ার্ক ১৮-এর সিইও রাহুল যোশিকে দেওয়া এক্সক্লুজিভ সাক্ষাৎকারে অমিত শাহ জানালেন, উত্তরপ্রদেশের নির্বাচনে কোন কোন ইস্যুকে সামনে আনতে চলেছেন ৷

প্রশ্ন: বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি-র কেমন ফল হবে?

জোটকে কটাক্ষ, দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ইউপিতে সরকার গড়ার দাবি অমিত শাহ-র

অমিত শাহ: সত্যি কথা বলতে, পুরো উত্তর প্রদেশের দখল নেওয়ার ব্যাপারটা এখনই এত দ্রুত ভাবছি না ৷ তবে এটা আমি অবশ্যই বলব, প্রথম ও দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে ১৩৫ টি আসনের মধ্যে ৯০টি আসনে বিজেপি জিতবেই ৷

প্রশ্ন: আপনার আসল লড়াই কার সঙ্গে, সপা-কং গাঁটছড়া নাকি মায়াবতী?

অমিত শাহ: আমার লড়াইটা একেবারেই অখিলেশ-রাহুলের সপা-কং জোটের সঙ্গে৷

প্রশ্ন: আপনার কী মনে হয়, সপা-কংগ্রেস জোটকে মুসলিম, যাদব ও উত্তরপ্রদেশের উচ্চজাতির মানুষেরা সমর্থন করলে, আপনার লড়াইটা কঠিন হয়ে যাবে?

অমিত শাহ: নির্বাচন নিয়ে কাগজের ওপর করা হিসেব-নিকেশ করা খুবই সহজ ৷ কিন্তু যখনই আমি আইন-কানুনের কথা বলি, তখনই বুঝতে পারি উত্তরপ্রদেশের মানুষ খুব একটা শান্তিতে নেই৷ তা সে যাদব বংশের হোক বা অন্য কোনও জাতের মানুষ ৷ গরীবের ওপর যে অত্যাচার হচ্ছে তা তো বাস্তব ঘটনা ৷ সেটা তো অস্বীকার করা যাবে না ৷ উত্তরপ্রদেশের পিছিয়ে পড়া মানুষেরাই বেশি কষ্টে রয়েছেন ৷ শহরের অবস্থাও খুব খারাপ ৷ গোটা রাজ্যে আইন-কানুন ব্যবস্থা এতটাই খারাপ যে সাধারণ মানুষ রোজ নতুন নতুন সমস্যায় ভুগছেন ৷

বুলন্দশহর হাইওয়েতে মা-মেয়ের ধর্ষণ হলে, সেই সমস্যা গোটা দেশের ৷ মথুরার মাঝখানে রামবৃক্ষ যাদব তিন বছর ধরে সরকারি জমি দখল করে রেখেছে ৷ যদি পুলিশ কোনও কারণে ওখানে যায়, তাহলে তাকে গুলি করে মেরে ফেলা হয় ৷ এই ধরণের পরিস্থিতিতে উত্তরপ্রদেশের মানুষ অতিষ্ঠ ৷ যদি অখিলেশ মনে করেন, যে এই জোটের নাটক, ফ্যামিলি ড্রামা করে এই সমস্যাকে এড়িয়ে যাবে, শুনে রাখুন, তা আমরা হতে দেব না ৷ উত্তরপ্রদেশের ‘ল অ্যান্ড অর্ডার’ই সবচেয়ে বড় সমস্যা, নির্বাচনের আগে সেটাকে বার বার সামনে আনতেই হবে ৷

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES