‘গরু’, ‘গুজরাত’ ও ‘হিন্দুত্ব’ উচ্চারণে আপত্তি, অর্মত্য সেনের তথ্যচিত্রে সেন্সরের কোপ

Jul 12, 2017 01:53 PM IST | Updated on: Jul 12, 2017 08:06 PM IST

#কলকাতা: এবার সেন্সরের কাঁচির কোপে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকে নিয়ে তৈরি তথ্যচিত্র ৷ সুমন ঘোষের তৈরি ‘দি আর্গুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ তথ্যচিত্রটি নিয়ে ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের আপত্তি মাত্র চারটি শব্দের কারণে ৷

'গরু', 'গুজরাট', 'হিন্দু মিডিয়া' এবং 'হিন্দুত্ব এই চারটি শব্দ তথ্যচিত্রটিতে উচ্চারিত হওয়ায় নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেনকে নিয়ে তৈরি তথ্যচিত্রটিকে ছাড় দিতে নারাজ সেন্সর বোর্ড ৷

‘গরু’, ‘গুজরাত’ ও ‘হিন্দুত্ব’ উচ্চারণে আপত্তি, অর্মত্য সেনের তথ্যচিত্রে সেন্সরের কোপ

দ্য আর্গুমেনটেটিভ ইন্ডিয়ান। যে ভারতীয় প্রশ্ন তোলেন, তর্ক করেন। শাণিত যুক্তি আর অর্থনীতির পরিসংখ্যানে সরকারকে মাঝেমাঝেই বিপাকে ফেলে দেন। তা সে দেশের উন্নয়নের প্রশ্নই হোক বা সম্প্রীতির তরজা। সেই তার্কিকের জীবনী নিয়ে তৈরি তথ্যচিত্রই এবার সেন্সর বোর্ডের আতসকাচের তলায়।

তথ্যচিত্রটিতে দেখানো অমর্ত্য সেনের সাক্ষাৎকারে নোবেলজয়ীর মুখে শোনা যায় এই চারটি শব্দ ৷ ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের তরফে পরিচালককে ওই চারটি শব্দে ‘বিপ’ ব্যবহার করতে বলা হয় ৷ সুমন ঘোষ এই প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ছাড়পত্র পায়নি ‘দি আর্গুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ তথ্যচিত্রটি ৷ আগামী শুক্রবার নন্দন ও বাকি প্রেক্ষাগৃহে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে নিয়ে তৈরি এই একঘণ্টার তথ্যচিত্রটি মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল ৷

আরও একবার সেন্সর বোর্ডের পদক্ষেপে প্রবল বিতর্কের ঝড় উঠেছে ৷ সমালোচনায় মুখর শিক্ষাবিদ থেকে সিনেমামেকার ৷ ভারতীয় সেন্সর বোর্ডের এই পদক্ষেপে ক্ষুব্ধ সুগত বসু জানান, ‘বাক্ স্বাধীনতায় কন্ঠরোধের চেষ্টা ৷ গুজরাত দাঙ্গা নিয়ে সমালোচনার অধিকার আছে ৷ এই বিষয়টি নিয়ে অমর্ত্য সেনের সঙ্গেও কথা হয়েছে ৷ উনি ওনার ব্যক্তিগত মতামত রেখেছেন ৷ আমরা চাই সব শব্দই যেন ব্যবহার করা হয় ৷ আশা করি সবার শুভ বুদ্ধির উদয় হোক ৷’

বিভিন্ন সময়ে সরকারের নানা পদক্ষেপ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ। তা নিয়ে বিরোধিতার মুখেও পড়তে হয় তাঁকে। নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য পদ থেকে ইস্তফা দিতেও বাধ্য হন। সেন্সর বোর্ডের বিতর্কে অবশ্য মুখ খুলতে নারাজ অমর্ত্য সেন।

RELATED STORIES

RECOMMENDED STORIES